মেইন ম্যেনু

ভাল আছেন হেমা মালিনী, গ্রেফতার গাড়ির চালক

ভারতের বিজেপি সাংসদ অভিনেত্রী হেমা মালিনীর গাড়ি ধাক্কায় চার বছরের এক শিশুর মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে গ্রেফতার করা হল তাঁর গাড়ির চালককে। অন্য দিকে, শুক্রবার সকালে অস্ত্রোপচারের পর অভিনেত্রী ভাল আছেন বলে জানিয়েছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

জয়পুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি আছেন হেমা। শুক্রবার সেখানেই সফল অস্ত্রোপচার হয় অভিনেত্রী-সাংসদের। অস্ত্রোপচারের পর সাংসদ ভাল আছেন বলে জানিয়েছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এ দিন সকালেই মুম্বই থেকে বিমানযোগে জয়পুর যান দুই মেয়ে এষা এবং অহনা।

অস্ত্রোপচারের সময় হেমার পাশে পরিবারের লোকেরা ছাড়াও ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজে সিন্ধিয়া। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ঘণ্টা দু’য়েকের অপরেশনের পর ‘পোস্ট অপরেটিভ ইন্টেনসিভ ইউনিট’-এ রাখা হয়েছে হেমাকে। দুর্ঘটনায় তাঁর নাকের হাড়ে চোট লাগে। কপালও ফেটে যায় অভিনেত্রীর। চোট লাগে তাঁর পা ও পিঠে। তাঁর নাক এবং ভুরুর মাঝে প্লাস্টিক সার্জারি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। আনুমানিক ৬ সপ্তাহ লাগবে চোট সারতে।

হাসপাতলে ভর্তি আছেন অল্টো গাড়ির আরোহীরা। ওই গাড়ির চালকের পায়ে এবং কলার বোনে আঘাত লেগেছে। দু’ পায়ের হাড় ভেঙেছে গাড়িতে থাকা অপর একটি এক বাচ্চার। আইসিউতে ভর্তি আছে সে। অল্টো গাড়ির আরোহীদের চিকিৎসার খরচ বিনামূল্যে করে দেওয়ার ব্যবস্থা করেন মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজে।

পুলিশ জানিয়েছে, অনিচ্ছাকৃত মৃত্যু এবং জোরে গাড়ি চালানোর অভিযোগে এ দিন গ্রেফতার করা হয় হেমার গাড়ির চালক রমেশ চন্দ্র ঠাকুরকে। তাঁর বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ২৭৯ এবং ৩০৪ (এ)-র ধারায় মামলা হয়েছে। জয়পুরের কোতওয়ালি থানার পুলিশ গ্রেফতার করে চালককে।

বৃহস্পতিবার রাতে মথুরা থেকে জয়পুর যাওয়ার পথে আগ্রা-জয়পুর জাতীয় সড়কে রাজস্থানের দৌসায় দুর্ঘটনার কবলে পরে সাংসদের মার্সিডিজটি। একটি অল্টো গাড়ির সঙ্গে সংঘর্ষ হয় মার্সিডিজটির। গাড়িতে হেমা ছাড়াও ছিলেন তাঁর পিএ এবং চালক।অল্টো গাড়িতে ছিলেন পাঁচ জন। দুর্ঘটনায় অল্টো গাড়িটির সওয়ারি একটি শিশুর মৃত্যু হয়। রাতেই অভিনেত্রীর চালকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়।