মেইন ম্যেনু

ভাড়া কমানোর সিদ্ধান্ত মানছেন না বাসমালিকরা

সমঝোতার ভিত্তিতে ঠিক করা দূরপাল্লার বাস ভাড়া কমানোর যে ঘোষণা দেয়া হয়েছিল তা দু’দফা পিছিয়েও কার্যকর করতে পারেনি সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)। পরিবহন মালিকদের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠকের পর গত ৩ মে ডিজেলে চালিত দূরপাল্লার পরিবহনের ভাড়া ৩ পয়সা কমিয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ঢাকা ও আশপাশের কয়েকটি জেলা এবং চট্টগ্রাম মহানগরী ব্যতীত আন্তঃজেলা ও দূরপাল্লার রুটে পরিচালিত ডিজেল চালিত বাস ও মিনিবাসের ভাড়া ১ টাকা ৪৫ পয়সা থেকে কমিয়ে ১ টাকা ৪২ পয়সা করা হলো। যা ১৫ মে থেকে কার্যকরের নির্দেশও দেয়া হয়।

কিন্তু বাসমালিক সমিতি তা কার্যকর করেনি। দ্বিতীয় দফায় সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় থেকে পাঁচদিন সময় বাড়ানো হয়, যা শুক্রবার (২০ মে) ভাড়া কমানোর কার্যকরের নির্দেশ দেয়া হয়। দু’দফায় ভাড়া কমানোর দিন-ক্ষণ ঠিক করে দেয় সরকার। কিন্তু বাস্তবে ঘটছে উল্টো চিত্র। আগের ভাড়াই রাখা হচ্ছে যাত্রীদের কাছ থেকে।

গত ১৫ মে বাস ভাড়া কার্যকরের প্রথম দিন সকাল ১১টায় সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের গাবতলী বাস টার্মিনাল পরিদর্শন করেন। তিনি যাত্রী ও বাস মালিকদের সঙ্গে কথা বলেন। মন্ত্রী বুঝে ফেলেন আগের ভাড়াই রাখা হচ্ছে। এতে তাৎক্ষণিক ক্ষোভও দেখান সড়ক মন্ত্রী।

পরে বাস মালিক সমিতির অনুরোধে আরো পাঁচদিন সময় দেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, ‘আগামী ২০ মে অর্থাৎ আজ থেকে ডিজেল চালিত পুনঃনির্ধারিত বাসভাড়া কঠোরভাবে কার্যকর করা হবে। কেউ এই নির্দেশ অমান্য করলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও সেতুমন্ত্রী মালিকদের প্রতি হুঁশিয়ার করেন।’

শুক্রবার (২০ মে) সকাল ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত রাজধানীর কমলাপুর, কল্যাণপুর, গাবতলী সরেজমিনে দেখা গেছে সব ডিজেল চালিত দূরপাল্লার কাউন্টারে আগের ভাড়াই রাখা হচ্ছে। কোনো কাউন্টারেই কোনো ভাড়ার তালিকা টানানো হয়নি।

রাজধানীর কল্যাণপুরে এ প্রতিবেদকের সঙ্গে কথা হয় দিনাজপুর হিলির যাত্রী জুয়েল রানার। তিনি জানান, বৃহস্পতিবার হিলি থেকে ৪৫০ টাকা ভাড়া দিয়ে ঢাকায় এসেছেন। শুকবার সকাল সোয়া ৯টায় কল্যাণপুর এস আর প্লাস পরিবহনে তার কাছে ৪৫০ টাকাই রাখা হয়েছে।

এসআর প্লাসের টিকিট মাস্টার জয়নাল মিয়া জানান, দূরত্ব অনুযায়ী আমরা এমনিতেই ভাড়া কম রাখা হয়। এছাড়া মালিক পক্ষ থেকে কোনো নির্দেশনা পাওয়া যায়নি। তাই আগের ভাড়া রাখা হচ্ছে।

কল্যাণপুরে হানিফ, টিয়া, কেয়া, শ্যামলী, দূরত্ব, দ্রুতিসহ সব ডিজেল চালিত দূরপাল্লার পরিবহণে আগের ভাড়াই রাখা হচ্ছে। যাত্রী প্রতি প্রতি কিলোমিটার ৩ পয়সা ভাড়া কম নেয়ার কোনো প্রভাব লক্ষ্য করা যায়নি এসব কাউন্টারে।

গাবতলী বাসটার্মিনাল থেকে আন্তঃজেলা শহরে চলাচলকারী বিভিন্ন গণপরিবহনেও আগের ভাড়া রাখা হচ্ছে। মানিকগঞ্জের বালিরটেক যাত্রী মো. বাদল মিয়া। তিনি জানান, গাবতলী থেকে বালিরটেক ভাড়া আগে ৭০ টাকা। আজ শুক্রবারও যাত্রী প্রতি ৭০টাকা রাখা হচ্ছে।

শুকতারা সার্ভিস এর সুপারভাইজার মো. কামাল উদ্দিন বলেন, ‘বাস পরিচালনা করি আমরা, সরকার গণপরিবহন পরিচালনা করে না। তাই কিভাবে গণপরিবহন চলবে, তা ডিসাইড করবে মালিকপক্ষ, সরকার নয়।’

এদিকে, বিআরটিএ শুক্রবার (২০ মে) একটি জাতীয় দৈনিকে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে বলেছে, ‘১৫ মে থেকে ভাড়া পুনঃনির্ধারিত ভাড়া কার্যকর করা হয়েছে। তবে বাস্তবে অধিকাংশ গণপরিবহণ হ্রাসকৃত ভাড়া আদায় না করে আগের ভাড়া আদায় করছে বলে অভিযোগ করেন অনেক যাত্রী।’

আগামীকাল শনিবার (২১ মে) সকাল ১১টায় সড়ক পরিহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের মহাখালী টার্মিনাল পরিদর্শনে যাবেন মন্ত্রী। দূরপাল্লার বাস ভাড়া সম্পর্কে সরেজমিনে খোঁজ নেবেন তিনি।

কমলাপুর হানিফ পরিবহনের এক ম্যানেজার মো. রতন মিয়া বলেন, ‘ আগেও আপনি আমার সঙ্গে কথা বলেছেন, আজও কথা বলছেন। নতুন করে আমার বলার কিছুই নেই। মালিক পক্ষ যা বলবে, আমরা তাই করবো। এর বেশি কিছু তিনি বলতে চাই না।’

বিআরটিএ চেয়ারম্যানের মো. নজল ইরুসলাম এর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি সেই পুরনো কথাই জানালেন। বললেন, ‘আমাদের মনিটরিং টিম আছে। তারা পর্যবেক্ষণ করছে। পুনঃনির্ধারিত ভাড়ার হার অনুযায়ী রুটভিত্তিক যাত্রী প্রতি ভাড়া নির্ধারণ পূর্বক ভাড়ার তালিকা পরিবহন মালিক সমিতিসহ সংশ্লিস্ট সকলকে সরবরাহ করা হয়েছে।’

এছাড়া পুনঃনির্ধারিত সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ থাকলে অফিস চলাকালীন ৫৮১৫৪৭০১, ৯১১৫৫৪৪, ৯১৪৩২৯০ ও ৯০০৭৫৭৪ টেলিফোন নম্বরে এবং যে কোনো সময় বিআরটিএর ওয়েবসাইটের ‘Queries & Complains’ পেজ-এ জানানো যাবে বলে বিআরটিএ চেয়ারম্যান জানান। কিন্তু এখনো কোনো যাত্রী আমাদের কাছে অভিযোগ করেনি।

যাত্রীকল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, ‘সরকার মালিক পক্ষের কাছে হেরে যাচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘ইতোপূর্বেও সরকার সারা দেশের মহাসড়কে অযান্ত্রিক যান চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। আইন করা হয়। কোনো অবস্থায়ই মহাসড়কে অযান্ত্রিক যানবাহন চলাচল করা যাবে না। এটা বন্ধ হয়নি বরং বেড়েছে। তেমনি ডিজেলচালিত দূরপাল্লার গণপরিবহণের ভাড়া কমানো কার্যকরী করতে পারবে কী না শঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘আমরা আগেও ৫৫টি বিভিন্ন রুটের সড়ক পর্যবেক্ষণ দেখেছি সব রুটে পূর্বের ভাড়া বলবৎ রয়েছে। আগেও বলেছি, এখানো বলছি, কমানো ভাড়া কার্যকরে দ্বিতীয় দফায় প্রথম দিনে এসব রুটের যাত্রী সাধারণের কাছে থেকে কমানো মূল্যে কোনো টিকিট ইস্যু করেছে কি না এক মাত্র মালিক পক্ষ বলতে পারবে। আমাদের জানা মতে আগের ভাড়াই যাত্রীদের কাছ থেকে রাখা হচ্ছে।’

আরামবাগ, ফকিরাপুলসহ রাজধানীর সব এলাকায় ডিজেল চালিত দূরপাল্লার কাউন্টারে আগের ভাড়াই রাখা হচ্ছে যাত্রীদের কাছ থেকে। এসব কাউন্টারে কোনো প্রতি যাত্রী প্রতি কিলোমিটার ৩ পয়সা হারে ভাড়া কমানোর কোনো নতুন তালিকা দেখা যায়নি।

ফকিরাপুলে সোহাগ পরিবহনের টিকিট মাস্টার মো. শাহীন বলেন, ‘মালিক পক্ষ ৩ পয়সা হারে কম ভাড়া পুনঃনির্ধারণ করে দেয় নাই। আগের ভাড়াই রাখা হচ্ছে।’

বাসমালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্লাহ বলেন, ‘কোথাও কোথাও কার্যকর করা হচ্ছে।’ আজ প্রথম তাই এখনো পুরোপুরি কার্যকরি হয়নি বলে জানান।

উল্লেখ্য, গত ২৫ এপ্রিল সব ধরনের জ্বালানি তেলের দাম কমানো হয়। এতে অকটেন ও পেট্রোলের দাম লিটার প্রতি ১০ টাকা এবং ডিজেলের দাম তিন টাকা কমিয়েছে সরকার। জ্বালানি তেলের এই মূল্য কমানোর ফলে সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) সুপারিশের ভিত্তিতে গত ৩ মে ডিজেলে চালিত দূরপাল্লার পরিবহনের ভাড়া ৩ পয়সা কমিয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়।বাংলামেইল