মেইন ম্যেনু

ভিটামিন শরীরের জন্য কতটা ভালো?

নিজে থেকে ভিটামিন গ্রহণের প্রবণতা গত দু’দশকে আরো বেড়ে গেছে। এ জন্য ৯০ দশককে বলা যেতে পারে ভিটামিন ও মিনারেলের দশক। কারণ এই দশকেই মানুষের মাঝে বিভিন্ন ধরনের ভিটামিন ও মিনারেল গ্রহণের আগ্রহ বেড়েছে। নতুন শতাব্দীতে এর ব্যাপকতা আরো বেড়েছে। এখন ভিটামিন ও মিনারেল ট্যাবলেট গ্রহণ করাটা নৈমিত্তিক অভ্যাসে পরিণত হয়েছে। কিন্তু বাজারের হাজারো ভিটামিন ও মিনারেল ট্যাবলেটের মধ্য থেকে আপনার প্রয়োজনেরটি বেছে নেয়া মোটেই সহজ ব্যাপার নয়। এ জন্য অবশ্যই চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলে নেয়া প্রয়োজন। তাছাড়া মাল্টি ভিটামিন ট্যাবলেট খাওয়ার আগে প্যাকেটের ভেতরের নির্দেশিকাটিও পড়ে নেয়া প্রয়োজন।

আমরা ভিটামিনের গুণের কথা শুনেই মুগ্ধ কিন্তু অতিমাত্রায় কিংবা প্রয়োজন ছাড়া ভিটামিন গ্রহণের ফলে সম্ভাব্য ক্ষতিকর দিকগুলো সম্পর্কে খুব কমই খোঁজ রাখি। প্রকৃত সত্য হচ্ছে, ভিটামিনের অভাব না হলে মাল্টিভিটামিন গ্রহণের কোনো দরকার নেই। ভিটামিনের অভাব হলে শরীরে ভিটামিন অনুযায়ী পৃথক পৃথক উপসর্গ দেখা দেয়। এই সব উপসর্গ থেকেই বোঝা যায় শরীরে আসলেই ভিটামিনের অভাব হয়েছে কি না? চর্বিতে দ্রবনযোগ্য বা ফ্যাট সলিউবল ভিটামিনের তালিকায় রয়েছে ভিটামিন- এ, ডি, ই এবং কে। এই ভিটামিনগুলো শরীরে সঞ্চিত অবস্থায় থাকতে পারে। কাজেই এগুলো মাত্রাতিরিক্ত গ্রহণ করা উচিত নয়।

মনে রাখতে হবে, মাল্টিভিটামিন মিনারেলের ট্যাবলেট কখনো সুষম খাবারের পরিপূরক নয়। তবে ভিটামিন ট্যাবলেট ভিটামিনের অভাবজনিত সমস্যা মোকাবিলায় সাহায্য করতে পারে। বরং ভিটামিনের অভাব না থাকা অবস্থায় কোনো ভিটামিন গ্রহণ করলে তা শরীরের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। যেমন মাত্রাতিরিক্ত ভিটামিন-এ শরীরের জন্য ক্ষতিকর। অতিরিক্ত মাত্রায় ভিটামিন-এ গ্রহণ করার কারণে চুল রুক্ষ হয়ে যেতে পারে, ত্বক খসখসে হয়ে যেতে পারে এবং লিভার বড় হয়ে যেতে পারে। বেশি মাত্রায় ভিটামিন গ্রহণ অনেক জটিল পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কারণ হতে পারে। অতিমাত্রা আয়রন গ্রহণের কারণে হৃদরোগ, ক্যান্সার এবং ঘনঘন ইনফেকশনের ঝুঁকি বেড়ে যায়। কাজেই মাল্টিভিটামিন এবং মিনারেল গ্রহণের আগে অবশ্যই চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করা উচিত। নিজে নিজে কখনোই ভিটামিন গ্রহণ করতে যাবেন না।

অনেকেই যে কোনো শারীরিক সমস্যার কারণ হিসাবে ভিটামিনকে দায়ী করেন এবং নিজে নিজেই ভিটামিন গ্রহণ করেন। যারা কাজটি করেন তাদের অনেকেরই ধারণা, ভিটামিন খেলে শরীরের কোনো না কোনো উপকার হবেই, আর বাড়তি ভিটামিন শরীরের কোনো ক্ষতি করে না। সাধারণের এই ধারণা ঠিক নয়। ভিটামিনের অভাব না থাকা অবস্থায় অযথা ভিটামিন গ্রহণ করা মোটেও উচিত নয়। বাড়তি ভিটামিন শরীরের জন্য ক্ষতির কারণ হতে পারে। তাছাড়া সব শারীরিক সমস্যার পেছনে ভিটামিন দায়ী-এমন ভাবাও উচিত নয়। সর্বোপরি ভিটামিন ট্যাবলেটের ওপর নির্ভর না করে, প্রতিদিনের খাবার থেকে ভিটামিন ও মিনারেলের চাহিদা পূরণ করাটাই উত্তম।

লেখক : ডা. সজল আশফাক, বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক



« (পূর্বের সংবাদ)