মেইন ম্যেনু

ভিডিও ফুটেজের সেই ব্যক্তি রবিন কি না-তা নিশ্চিত নয় পুলিশ

পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা আক্তার মিতু হত্যার ঘটনায় আটক রবিনের কাছ থেকে গুরুত্বপূর্ণ কোন তথ্য পায়নি পুলিশ। এছাড়া ভিডিও ফুটেজে যে ব্যক্তিকে দেখা গেছে তিনি রবিন কি না- তাও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। রিমান্ডে টানা ৭ দিনের জিজ্ঞাসাবাদে তেমন কোন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেয়নি রবিন।

মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) দেবদাস ভট্টাচার্য বিষয়টি নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের বলেন, ‘রবিনের কাছ থেকে গুরুত্বপূর্ণ কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। তবে তার বিরুদ্ধে নগরীতে ছিনতাই ও চাঁদাবাজির অভিযোগ রয়েছে।’

এদিকে শাহ জামান ওরফে রবিনকে রিমান্ড শেষে রোববার কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।

৭ দিনের রিমান্ড শেষে তাকে চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম নওরীন আক্তার কাঁকনের আদালতে হাজির করা হয়। পরে আদালত তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও নগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী কমিশনার মো. কামরুজ্জামান বলেন, ‘রবিনকে সাত দিনের রিমান্ডে নিয়ে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তবে তিনি তেমন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেননি। মামলার প্রয়োজনে তাকে ফের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ড আবেদন করা হতে পারে।’

উল্লেখ্য, গত ৫ জুন নগরীর জিইসি’র মোড় এলাকায় ছেলেকে স্কুল বাসে তুলে দিতে যাওয়ার পথে দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাত ও গুলিতে খুন হন পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা আক্তার মিতু।

এ ঘটনার পরদিন পাঁচলাইশ থানায় বাবুল আক্তার বাদি হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ঘটনার রহস্য উদঘাটনে কাজ করছে গোয়েন্দা পুলিশ, র‌্যাব, সিআইডি, পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) ও কাউন্টার টেররিজম ইউনিট (সিটিআই)।