মেইন ম্যেনু

ভূমধ্যসাগর থেকে ৬৫০০ শরণার্থী উদ্ধার

ভূমধ্যসাগরের লিবিয়া উপকূল থেকে প্রায় সাড়ে ছয় হাজার শরণার্থীকে উদ্ধার করেছে ইতালির কোস্ট গার্ড। সোমবার লিবিয়ার সাব্রাথা শহর থেকে প্রায় ২০ কিলোমিটার দূরে সাগর থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়। মঙ্গলবার বিবিসি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

ইতালির কোস্ট গার্ড জানিয়েছে, সাম্প্রতিক সময়ে একসঙ্গে উদ্ধার করা শরণার্থীদের মধ্যে এটিই সবচেয়ে বড় সংখ্যা। এই বিপুলসংখ্যক মানুষকে উদ্ধার করতে সব মিলিয়ে ৪০বার সমন্বিত উদ্ধার অভিযান চালাতে হয়েছে। উদ্ধারকাজে ইতালির জাহাজের পাশাপাশি ইউরোপীয় ইউনিয়নের বর্ডার এজেন্সি ফ্রন্টেক্স এবং বেসকারী সংস্থা প্রোঅ্যাক্টিভ ওপেন আর্ম ও মেডিসিন সায়েন্স ফ্রন্টিয়ার্সের উদ্ধারতরী অংশ নেয়।

বার্তা সংস্থা এপি জানিয়েছে, সমুদ্রে চলার অনুপযোগী একটি জলযানে করে শরণার্থীরা সাগর পাড়ি দিচ্ছিল। তবে, উদ্ধারকারীদের কাছাকাছি পৌঁছানোর মত যথেষ্ট পরিমাণে জ্বালানি তাদের যানে ছিল।

উদ্ধার অভিযানের ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, উদ্ধারকারী জাহাজ দেখে আনন্দ ও উচ্ছ্বাসে পানির মধ্যে লাফিয়ে পড়ে সাঁতরে সেই জাহাজের দিকে এগুতে চেষ্টা করছে ইরিত্রিয়া ও সোমালিয়া থেকে আসা শরণার্থীরা। এসময় ছোটো শিশুদের কোলে নিয়ে অনেক শরণার্থীকে সতর্কভাবে তাদের নৌকায় বসে থাকতে দেখা গেছে।

প্রসঙ্গত, গত রোববার একই স্থান থেকে প্রায় ১ হাজার ১০০ শরণার্থীকে উদ্ধার করা হয়েছিল। গত বছর ১০ লাখেরও বেশি শরণার্থী ইউরোপে প্রবেশ করেছে। আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) জানিয়েছে, চলতি বছর ইতিমধ্যে ১ লাখ ৬ হাজার শরণার্থী ইতালি পৌঁছেছে। এদের মধ্যে সাগর পাড়ি দেওয়ার সময় মারা গেছে ২ হাজার ৭২৬ জন। এছাড়া লিবিয়া থেকে সাগর পথে ইউরোপে প্রবেশের জন্য অপেক্ষমান রয়েছে আরো ২ লাখ ৭৫ হাজার শরণার্থী।