মেইন ম্যেনু

ভেস্তে গেল সোনিয়া গান্ধিকে হত্যার পরিকল্পনা

কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধির সভা করার কয়েক ঘণ্টা আগেই সভাস্থলের ১০০ মিটার দূর থেকে উদ্ধার হলো ৩০টি তাজা বোমা। এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পশ্চিমবঙ্গের সুজাপুর এলাকায়।

পুলিশ বোমাগুলো উদ্ধারের পর নিষ্ক্রিয় করেছে। তবে এ ঘটনায় এখনো পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। এদিকে গোটা ঘটনা ঘিরে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক উত্তেজনা।

আজ বুধবার দুপুরে সুজাপুরের হাতিমারি মাঠে সভা করতে আসছেন কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধি। ওই কেন্দ্রের বাম সমর্থিত জোট প্রার্থী কংগ্রেসের ইশা খান চৌধুরীর সমর্থনে সভা করবেন তিনি।

সম্প্রতি ওই কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী আবু নাসের খানের সমর্থনে সভা করে যান দলের প্রধান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফলে সোনিয়ার সভা ঘিরে সেখানকার কংগ্রেস কর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা এখন তুঙ্গে।

এরমধ্যে গতকাল রাতে সভাস্থল থেকে ১০০ মিটার দূরে সুজাপুর স্বাস্থ্যকেন্দ্র সংলগ্ন এলাকায় একটি ব্যাগে বোমা দেখতে পান স্থানীয় মানুষজন। এরপরই খবর দেয়া হয় পুলিশকে। ঘটনাস্থলে এসে কালিয়াচক থানার পুলিশ সদস্যরা বোমাগুলোকে উদ্ধার করে নিষ্ক্রিয় করেন। কে বা কারা ওই জায়গায় বোমাগুলো রেখেছিল তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

এদিকে গোটা ঘটনা ঘিরে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক উত্তেজনা। কংগ্রেসের অভিযোগ, সোনিয়া গান্ধির সভা বানচাল করার উদ্দেশ্যেই ওই বোমাগুলো মজুত করেছিল তৃণমূল কর্মীরা। আবার কেউ কেউ অভিযোগ করছেন, কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধিকে হত্যার পরিকল্পনা ছিল। আর সে কারণেই বোমাগুলো রাখা হয়েছিল। তবে লোকজন তা দেখে ফেলায় সেই পরিকল্পনা ভেস্তে যায়।

যদিও সেই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন স্থানীয় তৃণমূল কংগ্রেস নেতা শামীম মিঞা। তিনি পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন, এই কাজ কংগ্রেসেরই। ভোটে হার নিশ্চিত জেনে এখন তারা বোমা নাটক শুরু করেছে।