মেইন ম্যেনু

ভোট যেখানেই পড়ুক, জয়ী হবে আ.লীগ

রংপুর: দীর্ঘ ১৪ বছর পর উৎসবের আমেজেই ভোটগ্রহণ চলছে রংপুরের পীরগাছা উপজেলার ১নং কল্যাণী ইউনিয়নে। মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে বিরতিহীনভাবে শুরু হওয়া ভোটগ্রহণ চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

এক যুগেরও বেশি সময় পর ১নং কল্যাণী ইউনিয়নে নির্বাচন হওয়াতে বেশ খোশ মেজাজেই সকাল থেকে ভোটকেন্দ্রের দিকে ছুটছেন ভোটাররা। এখানে ১০টি ভোট কেন্দ্রের ৪২টি বুথে ১৭ হাজার ১৭ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। ভোটকেন্দ্রগুলোতে পুরুষ ভোটারের তুলনায় নারী ভোটারদের বেশি উপস্থিতি দেখা গেছে।

এদিকে স্থানীয় পর্যায়ে দলীয় প্রতীকে প্রথমবারের এই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ভোটারদের মনে উৎসবের রং ছড়িয়েছে। অন্যদিকে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী ছাড়া ভোট ছিনতাইয়ের শঙ্কা জেগেছে বিএনপি, জাতীয় পার্টি ও ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থীদের মনে।

‘ভোট যেখানেই পড়ুক, চেয়ারম্যান হবেন নুর আলম’। নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নুর আলমের সমর্থকরা আগাম জয়ের ইঙ্গিত দিয়ে ভোটের আগে এভাবেই প্রচার প্রচারণা চালিয়েছেন। অন্যদলের প্রার্থীরা মনে করছেন এ ধরণের প্রচার প্রচারণার ফলে ভোটারদের মনে বিরুপ প্রভাব ফেলবে।

তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী নুর আলম ও তার সমর্থকরা।

নির্বাচনে অংশ নেয়া বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ অন্য দলের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা সকলেই ভালো মানুষ এমনটা মন্তব্য করে নৌকা প্রতীকের নুর আলম বলেন, ‘কল্যাণী ১নং ইউনিয়নে সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণ চলছে। এখানে নির্বাচন নিয়ে কোনো প্রকার বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করার সুযোগ নেই। সব দলের প্রার্থী চান সুন্দর ও সুষ্ঠু পরিবেশে নির্বাচন হোক।’

আওয়ামী লীগ সমর্থিত এই প্রার্থী আরো বলেন, ‘একটি মহল বিভ্রান্তি ছড়িয়ে তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। তারাই মিথ্যা অভিযোগ প্রচার করে ভোটারদেরকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা চালাচ্ছেন।’

ভিন্ন কথা বলেছেন ধানের শীষ প্রতীকের বিএনপি সমর্থিত জিকরুল আমিন। তিনি বলেন, ‘ভোট হচ্ছে আজ, অথচ ভোটের ফলাফল আগেই প্রচার করা হয়েছে। নৌকার সমর্থকরা প্রচার করেছেন- ভোট যেখানেই পড়ুক, জয়ী হবে আওয়ামী লীগের নুর আলম।’

এদিকে লাঙ্গল প্রতীকে জাতীয় পার্টি সমর্থিত জলিল সরকার সাথে আলাপকালে বলেন, ‘ভোটের ফলাফলতো আগেই প্রচার করে সাধারণ ভোটারদের মধ্যে ভীতির সৃষ্টি করা হয়েছে। যা সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিপন্থি। তবুও আমি আশা করছি এখানকার সাধারণ মানুষ ও ভোটাররা ভোট ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা প্রতিহত করে লাঙ্গলের জয় নিশ্চিত করবেন।’

অন্যদিকে সরকারি দলের প্রার্থী নুর আলম ক্ষমতা ও টাকার বলে নানা ধরনের গুজব-বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের প্রার্থী আবু তাহের। হাতপাখা প্রতীকের এই চেয়ারম্যান প্রার্থী বাংলামেইলকে বলেন, ‘ভোটের আগে এ অবস্থা চলতে থাকলে সাধারণ ভোটাররা ভোটকেন্দ্রে যাবেন না। যা সুষ্ঠু নির্বাচন হওয়ার ক্ষেত্রে বড় বাধা।’

এদিকে বাহিরের কোনো গুজবে কান না দিতে ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে রংপুর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জিএম সাহাতাব উদ্দিন বলেন, ‘শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন করতে যা যা করা দরকার, তার সব ব্যবস্থা করা হয়েছে। যে কোনো মূল্যে সুষ্ঠু নির্বাচন করা হবে।’

উপজেলা রিটার্নিং অফিসার এটিএম সেলিম বলেন, ১নং কল্যাণী ইউনিয়নে ১৭ হাজার ১৭ জন ভোটার ১০টি ভোট কেন্দ্রের ৪২টি বুথে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করছেন।

উল্লেখ্য, রংপুর জেলার ৭৬টি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে প্রথম ধাপে শুধুমাত্র পীরগাছা উপজেলার ১নং কল্যানী ইউনিয়ন পরিষদে আজ ভোটগ্রহণ চলছে।