মেইন ম্যেনু

ভোলায় অবৈধ যানবাহনের ছড়াছড়ি, মাসওয়ারা নিচ্ছে পুলিশ

ভোলায় অবৈধ যানবাহনের ছড়াছড়ি,মাসওয়ারা নিচ্ছে পুলিশ।অবৈধ পথে আসা এসকল যানবাহনের ব্যবসাও বাধাহীনভাবে চলছে। এ বিষয়টি সম্পর্কে পুলিশ অবগত থাকলেও কোন মাথা ব্যাথা নেই তাদের। বন্ধ হচ্ছে না এ অবৈধ যানবাহনের চলাচল।

এমনকি এসব যানবাহন কোন বাধা ছাড়াই চলছে ভোলার সড়ক ও মহাসড়কে। সূত্র জানায়, এসব অবৈধ যানবাহন দেশের বিভিন্ন বডার দিয়ে চোরাই পথে আনা হয়। জানা যায়, বেশীভাগ যশোর বেনাপোল থেকে সরাসরি চালিয়ে আনা হয় বলে এসব যানবাহনকে টানা গাড়ী বলা হয়ে থাকে।

এসব অবৈধ যানবাহনগুলো কোন বৈধ কাগজ পত্র না থাকায় প্রশাসনকে ম্যানেজ করেই চলছে সড়কে। সূত্র আরো জানায়, যে চক্রটি এ অবৈধ যানবাহন বিক্রি করছে তাদেরকে দামের সাথে বাড়তি টাকা প্রদান করলে ভূয়া কাগজপত্র তৈরী করে দেন।

গত মাস দুয়েক কিছু অবৈধ যানবাহন আটক হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে থেকে জানা যায়। সে সময় অবৈধ যানবাহন ধরা ধরির কারণে সরকারের কয়েক কোটি টাকার রাজস্ব আদায় হয়েছে। এসব অবৈধ যানবাহনের নম্বর প্লেটে একটি ভূয়া নম্বর প্লেট অথবা বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের ষ্টিকার লাগিয়ে অবাধে চলছে সড়কে। পুলিশ ইদানিং সড়ক থেকে এসকল অবৈধ যানবাহন যেমন,আটো বোরাক,মাহেন্দ্র, টেম্পু, ভটভটি ও নসিমন চলাচলে বাধা সৃষ্টি করছে।

তবে অবৈধ আরো যেসব যানবাহন চলাচল করছে তাতে কোন বাধার সুষ্টি করছেনা বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ক্ষোভ প্রকাশ করে আটে বোরাক ,মাহেন্দ্র, টেম্পু, ভটভটি ও নসিমন মালিকগন জানান, সড়ক ও মহাসড়কে হাজার হাজার অবৈধ যানবাহন চলাচল করছে, আমরা ছোট বলে সবাই আমাদের ধরে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক মালিক জানান, আমরা প্রতি মাসে পুলিশকে মাসওয়ারা বাবদ মোটা অংকের টাকা দেয়ার পরও আমাদের উপর নির্যাতন করা হচ্ছে। ভূক্তভোগি ব্যক্তিরা বলেন, এসব যানবাহন অবৈধ হয়ে থাকলে সরকার কেন এগুলো আমদানী করতে অনুমতি দিয়েছে।

এসব যানবাহন চালুর প্রথম থেকে ইচ্ছা করলে পুলিশ বন্ধ করা সম্বব ছিল। এখন হাজার হাজার অবৈধ আটো বোরাক,মাহেন্দ্র,টেম্পু, ভটভটি ও নসিমনসহ নানান রকম অবৈধ যানবাহন সড়কে চলছে। সাধারন মানুষও দিন দিন এসকল যানবাহনে চলাচল করতে আগ্রহী উঠছে। তবে সমস্যা দেখা দিয়েছে বাস মালিকদের। তাদের একচেটিয়া ব্যবসায় এসব ক্ষুদ্র ক্ষূদ্র যানবাহন ভাগ বসিয়েছে। এতদিন তারা ভোলা-চরফ্যাশন মহাসড়কে অন্য কোন যানবাহন চলাচল করতে দেয়নি। এখন ভোলা-চরফ্যাশন মহাসড়কে সবধরনের যানবাহন চলাচল করছে।

এতে করে বাস মালিকদের একচেটিয়া ব্যবসায় হাত পরেছে। তারা এখন পুলিশের স্বরনাপন্ন হয়েছেন। পুলিশ এখন এসকল ছোট ছোট অবৈধ যানবাহনগুলোকে সড়কে যাতে চলতে না পারে তার ব্যবস্থা করছেন। জানা যায়, ভোলা জেলায় যেসব বাস চলাচল করছে তার অর্ধেক বাসের কোন ফিটনেস বা বৈধ কাগজ নেই।

আর এ ফিটনেস বিহীন অবৈধ বাস সড়ক বা মহাসড়কে চলাচলের কারণে অহরহ ঘটছে দূঘটনা, এবং এসব দূঘটনায় প্রতি বছর প্রান হারাচ্ছে ও পঙ্গুত্র বরণ করছেন অসংখ্য মানুষ। এসব অবৈধ ফিটনেসহীন যানবাহন কিভাবে সড়কে চলছে তা জানেনা কেউ।

বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য জনগন আইন প্রয়োগকারী সদস্যদের দৃষ্টি কামনা করছেন। এব্যাপারে ভোলা জেলা পুলিশ সুপার মো, মনিরুজ্জামানের সাথে আলাপ করলে তিনি জানান, পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ সঠিক নয়,অবৈধ সকল যানবাহনের বিরুদ্ধেইে আমাদের অভিযান চলছে। কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না।