মেইন ম্যেনু

ভৌতিক ছবি নিয়ে আসছেন ডিপজলের মেয়ে ওলিজা

দীর্ঘদিনের বিরতি কাটিয়ে আবারো চলচ্চিত্রে ফিরছেন জনপ্রিয় অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজল। তিনি নতুন বছর থেকে প্রতি মাসে বিগ বাজেটের দুটি ছবি নির্মাণ করবেন বলে গতকাল শনিবার (৩১ ডিসেম্বর) আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছেন।

প্রথম মাসের দুটি ছবির মহরত হয়ে গেল কাল। ‘এককোটি টাকা’ নামের একটি ছবি পরিচালনা করবেন ছটকু আহমেদ। সেখানে ডিপজলের পাশাপাশি জুটি বেঁধে কাজ করবেন বাপ্পী ও অমৃতা।

আরেকটি ছবি পরিচালনা করবেন ডিপজল তনয়া ওলিজা মনোয়ার। ছবির নাম ‘মেঘলা’। মজার ব্যাপার হলো ওলিজার ডাকনামও মেঘলা। নিজের নামের সঙ্গে মিলিয়েই কী ছবির নাম রাখা হয়েছে? এমন প্রশ্নের জবাবে ওলিজা বলেন, ‘অনেকটা বলা যায় এরকমই। তবে গল্পের সঙ্গে নামটির প্রাসঙ্গিকতা রয়েছে। দর্শক ছবিটি দেখলেই সেটি বুঝবেন।’

ওলিজা আরো বলেন, ‘মূলত ভৌতিক গল্প নিয়েই নির্মিত হচ্ছে ‘মেঘলা’ ছবিটি। এখানে একটি শিশুর ভৌতিক অভিজ্ঞতাকে কেন্দ্র করে এগিয়ে যাবে কাহিনি। চেষ্টা করবো আন্তর্জাতিক মানের একটি ছবি নির্মাণ করতে।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমি লন্ডনে পড়াশোনা করেছি বিজনেস স্টাডিজ নিয়ে। তবে শোবিজের প্রতি আমার ভালো লাগা ছিলো ছোটবেলা থেকেই। তাই ফিল্ম এন্ড মিডিয়া এবং মেকআপ নিয়ে পড়াশোনা করেছি। ওখানে একটি সরকারি কলেজে ফিল্ম এন্ড মিডিয়ার উপর শিক্ষকতাও করেছি আমি। মেকআপম্যান হিসেবে কাজ করার সৌভাগ্য হয়েছে বিশ্বখ্যাত নির্মাতাদের ছবিতে। আশা করছি সেইসব অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে দারুণ কিছু উপহার দিতে পারবো।’

ছবির বাজার ভালো না। সেখানে ‘মেঘলা’ ছবির কী বিশেষত্ব থাকবে যে দর্শক দেখতে হলে আসবে? এমন পশ্নের জবাবে ওলিজা বলেন, ‘বাজার ভালো না এই কথা ঠিক নয়। ভালো ছবি পেলে, দর্শক বিনোদন পেলে হলে আসবেই। হলিউডের হরর মুভিতে যেসব মেকআপ দেখে দর্শক বিনোদিত হন, আমার ছবিতেও তা থাকেবে। আমি নিজেই মেকআপম্যানের কাজটি করবো। আমার বেশ ক’জন সহকারী থাকবেন। ছবিতে ভিএফএক্স ইফেক্টসের ব্যবহার থাকবে যা মুগ্ধ করবে দর্শকদের। আমার বিশ্বাস, সবাই মিলে ভালো কিছু করার চেষ্টা করলে বাজার ঘুরে দাঁড়াবেই।’

সাধারণত হরর মুভিগুলো বিগ বাজেটের হয়। এত টাকা লগ্নি করা এই বাজারে খানিকটা ঝুঁকির নয় কী? ওলিজা জবাবে মজা করে বলেন, ‘ছবিটির পরিচালক, ফ্যাশন ও সেট ডিজাইনার, মেকআপম্যানের দায়িত্ব আমিই পালন করবো। এই ক্ষেত্রে বাজেট অনেক কমে যাবে। হা হা হা… । তাছাড়া সাফল্যের আশায় তো ঝুঁকি নিতেই হবে। ছোটবেলা থেকেই দেখেছি আমার বাবা ও মা ব্যবসায়ের স্বার্থে নানা রকম ঝুঁকি নিতেন। এইসবের সঙ্গে আমি পরিচিত। বিদেশ থকে অনেক ইন্সট্রুমেন্ট আনতে হবে। তার জন্য বেশ মোটা অংকের টাকা খরচ হবে। তবে ছবিটি সুনিপুণভাবে বানাতে পারলে দর্শক সেটি গ্রহণ করবেন। আর দর্শক হলে আসলেই সব ঝুঁকি স্বার্থক। আপনারা সবাই আমার জন্য দোয়া ও সহযোগিতা রাখবেন।’

ওলিজা আরো বলেন, চলতি মাসের মাঝামাঝিতেই সাভারে ডিপজলের শুটিং বাড়িতে শুরু হবে ছবির দৃশ্যধারণের কাজ। তার আগে ঘোষিত হবে ছবির অভিনয়শিল্পীদের নাম। আপাতত বিষয়টি চমক হিসেবে রইলো। তবে দেশের বেশ ক’জন জনপ্রিয় তারকাকে ছবিটিতে দেখা যাওয়ার আভাস দিলেন ওলিজা মনোয়ার মেঘলা। সাভার ও কক্সবাজারের বিভিন্ন লোকেশনে ছবিটির শুটিং হবে।

লন্ডনে পড়াশোনা করে সেখানেই ক্যারিয়ার গড়ার যথেষ্ট সুযোগ ছিলো ওলিজার। তবে দেশ ও দেশের চলচ্চিত্র শিল্পের প্রতি গভীর টান অনুভব করেন তিনি। তাই বাবার দেখানো পথ ধরে তিনিও হাঁটতে চান ঢাকাই ছবিতে। তবে কেবলই পর্দার পেছনের মানুষ হয়ে। ওলিজা নিজেকে একজন নির্মাতা, মেকআপ বিশেষজ্ঞ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে চান। প্রয়োজনে তিনি বাংলাদেশে মেকআপ ইন্সটিটিউটও গড়ে তুলবেন বলে আশা ব্যক্ত করেন।