মেইন ম্যেনু

ভ্যালেন্টাইন্স ডে-র সবথেকে ভাইরাল খবর প্রকাশ!

রেমিকা প্রতারণা করছিলেন, তা বেশ কয়েক দিন ধরেই টের পেয়েছিলেন ইংল্যান্ডের কাইল বগেস। ধরতে পারতেন আগেই। ধরেননি। পর্দা ফাঁস করার জন্য বেছে নিয়েছিলেন ভ্যালেন্টাইন্স ডে-কেই।

নিজের সম্পর্কে একাধিক মিথ্যা কথা বলে তাঁকে ঠকাতে চাইছিলেন প্রেমিকা। এই বিষয়টি ধরে ফেলেছিলেন কাইল বগেস। তাঁর সন্দেহ হয়েছিল, প্রেমিকা একটি ডেটিং সাইটে নিয়মিত নতুন বন্ধু খুঁজে বেড়ান। তাঁদের সঙ্গে যত্রতত্র যান, যা-তা করেন।

সেই ডেটিং সাইটে ফেক প্রোফাইল খোলেন কাইল। খুঁজতে হয়নি, প্রেমিকাই তাঁকে খুঁজে নেন মাত্র ১০ মিনিটে। এর পরে শুরু হয় প্রেমিকার লীলা। কাইল বলছেন, ‘‘ও আমাকে বলল, আমি যদি কখনও ওকে ঠকাই, ও আমাকে মেরেই ফেলবে। তখনও ও বুঝতে পারেনি আমি ফেক প্রোফাইল থেকে কথা বলছি। একটা নতুন ফোন নম্বরও নিয়েছিলাম। সেখান থেকে টেক্সট করতাম নিয়মিত। দেখা করতে চাইত।

কাইল বেছে নিয়েছিলেন ভ্যালেন্টাইন্স ডে-কেই। প্রেমিকাকে ডেকে আনেন নিজের বাড়িতে। চোখ বেঁধে দেন। প্রেমিকা যখন রোম্যান্টিক গিফ্‌ট-এর অপেক্ষায়, তখনই তাঁর হাতে তুলে দেন প্রমাণ। এর পরে সটান বেরিয়ে যেতে বলেন বাড়ি থেকে। প্রেমিকা বলেন, ‘‘অনেক রাত পর্যন্ত কাজ করতে হয়। ফলে, একটু হালকা থাকার জন্য এই সব করি।’’ এর পরে অবশ্য বলেন, ‘‘আই কেয়ার আ ড্যাম।