মেইন ম্যেনু

ভ্রমণে বমি এড়িয়ে চলুন সহজ ৪টি উপায়ে

ভ্রমণ অনেক আনন্দের, অনেক রোমাঞ্চকর একটি বিষয়। কিন্তু অনেকেই বাস বা গাড়িতে বমি হওয়ার প্রবণতা রয়েছে। বিশেষ করে দূরের ভ্রমণের সময় অনেকেই মোশন সিকনেস বা বমি বমি ভাব হওয়ার সমস্যায় পড়ে থাকেন। এই অনুভূতিটি খুবই বিরক্তিকর এবং অস্বস্তিকর। এই সমস্যার কারণে অনেকেই দূরে ভ্রমণ করতে ভয় পান। গাড়ির গতির কারণে কানের অভ্যন্তরীণ ভেসটিবুলার অংশে যে তরল থাকে তা নাড়িয়ে দিয়ে থাকে। যার কারণে বমি বমি ভাবের সৃষ্টি হয়ে থাকে। এই অস্বস্তিকর বমি বমি ভাব দূর করে ফেলুন সহজ কিছু উপায়ে।

১। আদা

American Journal of Physiology – Gastrointestinal and Liver Physiology in 2003 এর মতে যেসকল ব্যক্তিরা ভ্রমণের আগে কিছু পরিমাণে আদাকুচি খেয়ে থাকেন, তাদের ভ্রমণ সহজ হয়ে থাকে।

কয়েক টুকরা আদা কুচি দুইকাপ পানিতে ১০ মিনিট ফুটিয়ে নিন। এরসাথে এক চা চামচ মধু মিশিয়ে নিন। ভ্রমণের আধঘন্টা আগে এটি পান করুন। এছাড়া এক চা চামচ আদার রস এবং এক চা চামচ লেবুর রস মিশিয়ে ভ্রমণের আগে পান করুন।

২। অ্যাপেল সিডার ভিনেগার

দুই টেবিল চামচ অ্যাপেল সিডার ভিনেগার এবং এক টেবিল চামচ মধু এক কাপ কুসুম গরম পানিতে মিশিয়ে নিন। ভ্রমণের আধাঘণ্টা আগে এটি আস্তে আস্তে পান করুন। এটি আপনার পাকস্থলিকে সুস্থ করে বমি বমিভাব দূর করে থাকে। আপনার যদি ভ্রমণের সময় বমি চলে আসে তবে আধা কাপ পানিতে এক চা চামচ অ্যাপেল সিডার ভিনেগার মিশিয়ে পান করুন। এটি সাথে সাথে আপনার বমি বমি ভাব প্রতিরোধ করে দিবে।

৩। লেবু

লেবু এবং লেবুর রসে সাইট্রিক অ্যাসিড রয়েছে যা বমি বমিভাব দূর করতে সাহায্য করে এক গ্লাস কুসুম গরম পানিতে একটি লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এরসাথে এক টেবিলচামচ মধু মিশিয়ে নিন। ভ্রমণের সময় অল্প অল্প করে এটি পান করুন। ভ্রমণের সময় এক টুকরো লেবু মুখে রাখতে পারেন।

৪। যষ্টিমধু

যষ্টিমধু আপনার বমি বমি ভাব দূর করে দিতে সাহায্য করে থাকে। এর অ্যান্টি ইনফ্লামেটরি উপাদান বমি বমি ভাব দূর করে ক্লান্তি দূর করে থাকে। আধা গ্লাস পানির মধ্যে এক চা চামচ যষ্টিমধু মিশিয়ে জ্বাল দিন। পাঁচ মিনিট জ্বাল দিন। তারপর ছেঁকে এটি ভ্রমণের আগে পান করে নিন। ভ্রমণের সময় বমি বমি ভাব রোধে আপনি কিছুটা যুষ্টিমধু মুখে দিয়ে রাখতে পারেন।

টিপস:

১। ভ্রমণের আগে চর্বি বা তৈলাক্ত এবং মশলা জাতীয় খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।

২। যেদিকে ভ্রমণ করবেন তার বিপরীত দিকে বসা থেকে বিরত থাকুন।

৩। বাসের পিছনের সিটে বসা এড়িয়ে চলুন।

৪। বেশি খারাপ লাগলে চোখ বন্ধ করে রাখুন।

৫। গাড়ির জানালাটি খোলা রাখুন এতে ফ্রেশ ঠান্ডা বাতাস গাড়িতে প্রবেশ করার সুযোগ পাবে।