মেইন ম্যেনু

ভ্রমন করতে গিয়ে মেয়ে পছন্দ হয়েছে? পটানোর এই অভিনব ১০টি টিপস জেনে রাখুন…

লম্বা সফর। ট্রেনের কামরায় আপনি এবং এক বরবর্ণিনী। এমন মুহরত কি বৃথা যায়? বন্ধ এসি কামরা। কোনও ফেরিওয়ালারও যেখানে প্রবেশ নিষেধ। এহেন বোরডমকে কাটাতে আপনি ফ্লার্ট করতেই পারেন। তবে একটা কথা সবার আগে মনে রাখা দরকার। সেটা এই— যেমন তেমন ভাবে অসভ্যতা করলে আপনার কপালে দুঃখের পাহাড় নেমে আসতে পারে। আর যদি সাবধানে পা ফেলেন, তাহলে থোড়াসা রুমানি-র বুলন্দ দরওয়াজা আপনার সামনে খোলা।

এখানে রইল ট্রেন-ঝাড়ির ১০টি জোরালো টিপস।

• প্রথমেই হামলে পড়বেন না। বুঝে নিন হাল-হকিকিত। দেখে নিন সঙ্গে কে রয়েছেন। বাব-মা থাকলে হেভি ভদ্র ছেলে হয়ে কয়েক ঘণ্টা কাটান। আর আকেলি হলে হালকা শিভ্যালরি দেকেন। প্রথম স্টপেই চা অফার করুন বা ওই জাতীয়।

• লাঞ্চ বা ডিনারের সময়ে একটু উদাসীন হোন। শরীর খারাপের ভান করুন। দেখুন রেসপন্স কেমন। যদি হাওয়া মলয়-মরুৎ হয়ে থাকে। তবে অনশন ব্রেক করুন। তবে খুব সফিস্টিকেটেড ভাবে খান। খেতে খেতে অল্প ঝাড়ি করুন। এমন একটা দৃষ্টি দিন, যার অর্থ— ভাগ্যিস তুমি ছিলে, তা নইলে এই উপবাস…

• সঙ্গে ম্যাগাজিন থাকলে শেয়ার করুন। পারলে ওঁর কাছে থাকা পত্রিকাও চেয়ে দেখতে পারেন। তবে যদি দেখেন, ব্যাগ থেকে ফিলজফির বই বেরুচ্ছে। সাবধান!

• সহজে ঠিকানা দেবেন না। ঠিকানা জানতেও চাইবেন না। দেখুন অন্য প্রান্ত থেকে কী রেসপন্স আসে।

• ব্যক্তিগত কথা কম বলুন। চট করে নিজেকে উজার করে দেবেন না। এমনকী নিজের ছোটখাটো পছন্দ-অপছন্দগুলোও খানিকটা থমকে রাখুন। অন্য প্রান্তের পছন্দ-অপছন্দকে গুরুত্ব দিন। তবে এখানেও ইয়েসম্যানগিরি করবেন না। রিজার্ভ থাকুন।

• যে রাস্তায় চলেছেন, সেই পথ সম্পর্কে ওয়াকিবহাল না হলে মুখ খুলবেন না। বরং ইগনোরেন্সটাই খুলে বলুন। জানবেন, সততাই প্রকৃত মূলধন।

• অন্য প্রান্তের গন্তব্য জানা হয়ে গেলে সেই জায়গা সম্পর্কে কৌতূহল প্রকাশ করুন। যদি আপনার সেই জায়গা পরিচিত হয়ে থাকে, তবে আস্তে আস্তে খুলুন খাপ।

• বেশ কিছু সময় কাটলে নিজের পেশা বা অন্য তথ্য জানাবেন। তবে সবই রেখেঢেকে।

• বিদায়ের সময়ে হাঁকপাঁক করবেন না। বেশি আবেগ দেখাবেন না। দেখুন ও প্রান্তের আবেগ কতখানি।

• একই গন্তব্য হলে ট্রেন থেকে নেমে ট্যাক্সি নিন, ভদ্রভাবে লিফ্‌ট অফার করুন। কিন্তু তাঁর গতিপথ যদি অন্যদিকে হয়, নিজেকে সেদিকে বাঁকাবেন না।

বোনাস টিপস
মনে রাখবেন, পথের বেশিরভাগ আলাপ পথেই শেষ হওয়া দস্তুর। তাকে প্রসম্বিত করলে অনেক সময়েই বিপদ রয়েছে।

সূত্র: এবেলা