মেইন ম্যেনু

মদপানে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৭, মামলা

রংপুর জেলার তাজহাট বিহারি পল্লিতে মদপানে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৭ জনে দাঁড়িয়েছে। মঙ্গলবার মধ্যরাতে মিঠুন দাস ও আব্দুল আজিজ নামের দুজন রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যায়।

স্থানীয় শহিদুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি জানান, এই এলাকার অনেক লোকজন এই মদ পান করেছে। অনেকে এখনো অসুস্থ আছে।

এদিকে এ ঘটনায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে। নিহত মনু ও নাসিমের বড় ভাই আমিন মিয়া বাদি হয়ে রংপুর কোতয়ালী থানায় এ মামলা করেন। মঙ্গলবার রাতে এ মামলা করা হয়।

মঙ্গলবার ভোরের এ ঘটনায় নিহতরা হলেন, তাজহাট বিহারিপাড়ার শুকুর আলীর ছেলে আবদুল গফুর মিয়া (৩৩), তার চাচাত ভাই শরিফ মন্ডলের ছেলে নাসিম মিয়া (৪৫), মনু মিয়া (৩৫), এরশাদ নগরের লক্ষ্মণ দাস (৫৮), রবাটসনগঞ্জ এলাকার আবদুল লতিফের ছেলে আজমেরি (৩০), মিঠুন দাস ও আব্দুল আজিজ।

রংপুর কোতয়ালী থানার সেকেন্ড অফিসার ফেরদৌস ওয়াহিদ জানান, এ ঘটনায় সাইয়া নামের একজনকে প্রধান আসামি করে ৩৪ জনের নামে এ মামলা হয়। রাতেই আয়নাল হক, আমজাদ হোসন, আসমা বেগম, আজিজুল ইসলাম, আনোয়ার হোসেন বাবু, বিজয় রায়কে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। একই সাথে বিভিন্ন মাদক বিক্রেতা সেবনকারীসহ ৩৩জনকে আটক করা হয়।

এই সাইয়ার বাড়িতে সবাই পদ পান করে। সে দীর্ঘদিন ধরেই এই মদের ব্যবসা করে আসছিল বলে জানান তিনি।

রংপুর কোতয়ালী থানার ওসি আব্দুল কাদের জিলানী জানান, মূল আসামিকে গ্রেপ্তার করতে অভিযান অব্যাহত আছে। আমরা আশা করছি দ্রুত সব আসামি গ্রেপ্তার হবে।