মেইন ম্যেনু

মদ-ফেনসিডিলের বোতল দিয়ে বাংলাদেশের মানচিত্র!

আটককৃত বিপুল পরিমান মদ ও ফেনসিডিলের বোতল দিয়ে সোমবার বাংলাদেশের মানচিত্র এঁকেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) কুষ্টিয়া সেক্টর। মাদকের বিরুদ্ধে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্যই এমনটা করা হয়েছে বলে দাবি তাদের। তবে ছবিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে শুরু হয়ে যায় নানা সমালোচনা। বিশিষ্টজনেরাও এর কঠোর সমালোচনা করেছেন।

হাসান মেহেদী নামের একজন ফেসবুকে লিখেছেন, ‘নতুন আবিষ্কার! ফেনসিডিলের বোতলে বাংলাদেশের মানচিত্র।’

আরেকজন লিখেছেন, ‘চারিদিকে ভারতীয় হাজারো মদের বোতল। মাঝখানে হাজারো ফেনসিডিলের বোতল। ফেনসিডিলের বোতল দিয়ে তৈরি করা হয়েছে বাংলাদেশের মানচিত্র। দুর থেকে দেখলে মনে হচ্ছে বাংলাদেশ মানেই ফেনসিডিল। এই বাংলাদেশই তো আমরা চেয়েছিলাম? অভিনন্দন বাংলাদেশ !!!’

বাংলাদেশের মানচিত্র খচিত প্রথম জাতীয় পতাকার নকশাকার শিবনারায়ণ দাস প্রিয়.কমকে বলেন, ‘এটি হল কাণ্ডজ্ঞানের ব্যাপার। যাদের মাতৃভূমির প্রতি শ্রদ্ধা ও দেশপ্রেমের সংকীর্ণতা রয়েছে তারা এই কাজ করতে পারে। এটা মূল্যবোধের অবক্ষয়। তারা নিজের দায়িত্ব ও কর্তব্য জ্ঞান সম্পর্কে সচেতন না হওয়ার ফলে এ কাজ করতে পেরেছে। নিজের ঐতিহ্য ও সাংস্কৃতিক সমুন্নত রাখতে হয় কীভাবে আমাদের দেশের অনেক বিজ্ঞজনরাই জানেন না। কিন্তু তারাই এখন সমাজে প্রতিষ্ঠিত।’

একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহরিয়ার কবির বলেন, ‘এটা অনৈতিক কাজ। ফুল ও প্রদীপ দিয়ে মানচিত্র আঁকা যায়। যদিও এ বিষয়ে আমাদের সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা নেই। মানচিত্রের প্রতি আমদের শ্রদ্ধা ও ভালবাসা থাকতে হবে। এটা মদ ও ফেনসিডিলের বোতল দিয়ে করা যায় না। এই কাজটা বিজিবি ঠিক করেনি।’

বিজিবি কুষ্টিয়া সেক্টর হেড কোয়ার্টার থেকে ক্যাপ্টেন মামুন বলেন, আমাদের প্রিয় এই দেশে ছোট ছোট আকারে ক্রমশ মাদকদ্রব্য বিস্তার লাভ করছে। আমরা এখনই সচেতন না হলে আস্তে আস্তে সারা দেশে মাদক ছড়িয়ে পড়বে। ঐ বোতলগুলোকে পরে ধ্বংস করা হয়েছে। এভাবে মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে এবং মাদক ধ্বংস করতে হবে।