মেইন ম্যেনু

মনে হচ্ছিল সত্যি সত্যি মুক্তিযুদ্ধ হচ্ছে :ফেরদৌস

‘পোস্টমাস্টার ৭১’ ছবিতে থানা দখলের একটি ঘটনা রয়েছে। আমরা সাভারের ভিতরে একটি গ্রামে পোড়াবাড়িতে এ দৃশ্যের জন্য সেট নির্মাণ করেছিলাম। সেখানে ১১-১২জন মুক্তিযোদ্ধা একটি স্থানে আশ্রয় নিয়েছেন। পথে থাকে একটি বুড়ির বাড়ি। আমরা বাড়িতে আশ্রয় নিতে গেলে তিনি দা নিয়ে বেড়িয়ে আসছেন। তারপর তিনি এসে তাঁর একটা গল্প বলেন। এভাবেই এগিয়ে যেতে থাকে ছবির কাহিনী। সেসময়টায় সত্যি সত্যি মনে হচ্ছিল মুক্তিযুদ্ধ হচ্ছে!

ওই সময় বুড়ো মহিলার একমাত্র মুরগিটা আমাদের রান্না করে খাওয়ান। এরপর শুটিং চলাকালীন সময়ে সবাই একসাথে বসে থাকার সময় একটা গা থমথম করা ভয়। জয় পাওয়ার একটি আনন্দ, সঙ্গে আবার দু:চিন্তা। কিছু মুহুর্ত আসলে এমন হয়ে যায়। আমরা সত্যিকারের মুক্তিযুদ্ধের সময়টাতে তো ছিলাম না। সেসময়ের ঘটনাগুলো আমরা বড়দের কাছ থেকে শুনেছি’।

এভাবেই পোস্টমাস্টার ৭১ ছবির শুটিংয়ের অভিজ্ঞতা একটানা বলে গেলেন অভিনেতা ফেরদৌস আহমেদ। মুক্তিযুদ্ধের সময়কালীন পাবনার পাকশী এলাকার একজন পোস্ট মাস্টার। যিনি যুদ্ধের সময়ে বেনামে চিঠি লিখে ছেলেমেয়ের মুক্তিযুদ্ধে যাওয়ার জন্য উদ্ধুদ্ধ করতেন। এ ধরনের গল্প নিয়েই নির্মিত হচ্ছে ছবিটি।

‘পোস্টমাস্টার ৭১’ ছবিটির ৭৫ ভাগ কাজ শেষ। এরপর ৩ এবং ৪ তারিখের মধ্যে সাভার অথবা মানিকগঞ্জে শুটিং শুরু হবে। এতে কেন্দ্রীয় চরিত্রে পোস্টমাস্টার হিসেবে অভিনয় করছেন ফেরদৌস। প্রফুল্ল রায়ের গল্প অবলম্বনে ‘পোস্টমাস্টার ৭১’ হবে ফেরদৌস প্রযোজিত দ্বিতীয় ছবি।

এ ছবিতে ফেরদৌস ছাড়াও আল মনসুর, শহীদুল আলম সাচ্চু, নিঝুম রুবিনা, অভি প্রমুখ অভিনয় করবেন। ছবির সংগীত পরিচালনা করবেন ইমন সাহা। ২০১৬ সালের ২৬ মার্চ মুক্তি দেওয়ার পরিকল্পনা করেছেন প্রযোজক ফেরদৌস। আর ছবিটি পরিচালনা করছেন আবির খান ও রাশেদ শামীম।