মেইন ম্যেনু

মন্ত্রীর মরদেহ মৌলভীবাজারে, শোকার্ত মানুষের ঢল

সমাজকল্যাণমন্ত্রী ও বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মহসিন আলীর লাশ ঢাকা থেকে একটি হেলিকপ্টারে মৌলভীবাজার এম সাইফুর রহামান স্টেডিয়ামে এসে পৌঁছেছে। এরপর স্টেডিয়াম থেকে নিয়ে যাওয়া হয় পৌরসভার দর্জিহলের মন্ত্রীর নিজ বাসায়।

বাসায় নিয়ে যাবার পর সৃষ্টি হয় এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের। স্বজন-ভক্ত আর শুভাকাঙ্ক্ষিদের আহাজারিতে দর্জিপাড়ার আকাশ-বাতাস ভারি হয়ে উঠে।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, তাকে এক নজর দেখার ভিড় করেছেন বিভিন্ন ধর্মাবলম্বী আর নানা রাজনৈতিক দলের কয়েক হাজার মানুষ। সবার চোখে শোকের অশ্রু।

মন্ত্রীকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে মৌলভীবাজার এসেছেন জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আসম ফিরোজ, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী প্রমোদ মানকিন, হুইপ মো. শাহাব উদ্দিন, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, সাবেক চিফ হুইপ আব্দুস শহিদ, কেন্দ্রীয় ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন, বিশিষ্ট দানবীর রাগিব আলীসহ বিভিন্ন স্তরের জনপ্রতিনিধি, রাজনীতিবিদ, সামাজসেবক ও সাধারণ মানুষ।

এদিকে বিকেল ২টা থেকে ৪টা পর্যন্ত সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা জানানো জন্য সামজকল্যাণমন্ত্রীকে মৌলভীবাজার শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে নেয়া হবে।

আজ আসরের নামাজের পর মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জানাজা শেষে সৈয়দ শাহ মোস্তফা (রা.) মাজারে মা-বাবার কবরের পাশে সমাহিত করা হবে।

উল্লেখ্য, গত ৪ সেপ্টেম্বর রাতে হবিগঞ্জের মাধবকুণ্ডে আলোচনা সভা থেকে ফিরলে রাত শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। এরপরই মন্ত্রীকে ঢাকার বারডেম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। নিউমোনিয়া, কিডনিতে সমস্যা এবং ডায়াবেটিস রোগে মারাত্মক অসুস্থ সমাজকল্যাণমন্ত্রীকে গত ৫ সেপ্টেম্বর উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর মাউন্ট এডোরা হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন।