মেইন ম্যেনু

মমতা ব্যানার্জিকে শোকজ

নির্বাচনী আইন ভঙ্গের অভিযোগে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সভানেত্রী মমতা ব্যানার্জিকে শোকজ নোটিশ পাঠিয়েছে ভারতের নির্বাচন কমিশন। গতকাল বৃহস্পতিবার দেশটির প্রধান নির্বাচন কমিশনার নাসিম জাইদি কলকাতায় কমিশনের ফুল বেঞ্চের এক বৈঠক শেষ এ শোকজ নোটিশ পাঠানো হয়।

সম্প্রতি বর্ধমানের আসানসোলে নির্বাচনী সভায় আসনসোলকে পৃথক জেলা করার ঘোষণা দেন তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জি। ভারতের নির্বাচন আইনে নির্বাচনের তারিখ ঘোষণার পর থেকে সরকারি দল কোনো প্রতিশ্রুতি দিতে পারবে না। এমন কি নতুন কোনো প্রকল্পে স্বাক্ষরও করতে পারবে না সরকারের মুখ্যমন্ত্রী কিংবা তার মন্ত্রীরা।

যে সরকারটি রাজ্যে রয়েছে তা মূলত ’অ্যাকটিং সরকার’। কিন্তু আসানসোলে দাঁড়িয়ে নিজেকে ‘মুখ্যমন্ত্রী ভেবে’ মমতা ব্যানার্জি আসানসোলকে জেলা করার ঘোষণা দেন। পরে নির্বাচন কমিশনের ফুল বেঞ্চ বৈঠকে এটাকে নির্বাচনী আইন ভঙ্গ বলে মনে করেন। আর সে কারণেই তাকে শোকজ নোটিশ পাঠানো হলো।

কমিশনার জাইদি বলেন, শুধুই মমতা ব্যানার্জিই নয় তৃণমূল কংগ্রেসের বীরভূমের নেতা অনুব্রত মন্ডলের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থাও নেবে নির্বাচন কমিশন।

এদিকে, শোকজ নোটিশ নিয়ে মমতার মধ্যে তেমন কোনো ভ্রুক্ষেপ লক্ষ করা যায়নি। বরং গতকাল বৃহস্পতিবার বীরভূমের সভায় মমতা ব্যানার্জি আবারো কমিশনের দিকে কড়াভাষায় হুশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, “যা বলেছি বেশ করেছি। প্রয়োজন হলে আমি হাজার বার বলবো।”

এছাড়া, তৃণমূল নেতা অনুব্রত মন্ডলের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশন বেফাস মন্তব্য করার অভিযোগে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে ঘোষণাও দেন মমতা। তিনি বলেন, অনুব্রত মন্ডলের গায়ে হাত দিয়ে দেখুক কেউ। ১৯ মের পর বিজেপি, কংগ্রেস, বামফ্রন্ডকে আমি শোকোজ করবো।