মেইন ম্যেনু

মরা গরু সরাতে রাজি নন বলে অন্তঃসত্ত্বার পেটে লাথি

গরুর মরদেহ সরাতে রাজি হননি বলে এক অন্তঃসত্ত্বা দলিত নারীর পেটে সজোরে লাথি মারার ঘটনা ঘটেছে। বেধড়ক পেটানো হয়েছে তার পরিবারকেও।

নির্মম এই ঘটনা ঘটেছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির রাজ্য গুজরাটে।

রাজধানী আহমেদাবাদ থেকে ১৮০ কিলোমিটার দূরে গুজরাটের মোটা কারগা গ্রামে গত শুক্রবার ঘটনাটি ঘটেছে বলে নিগৃহীতার পরিবার জানায়।

তারা বলেন, ওই দিন স্থানীয় ঠাকুর সম্প্রদায়ের কয়েকজন ওই মহিলার বাড়িতে এসে তাকে ঠাকুরদের বাড়িতে পড়ে থাকা গরুর মরদেহ সরাতে বলে। কিন্তু ওই দলিত মহিলাটি তাতে রাজি হননি।

অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় বেশ কিছু দিন আগেই ওই সব কাজ করা তিনি ছেড়ে দিয়েছেন বলে বাড়িতে আসা ঠাকুর সম্প্রদায়ের লোকজনদের জানান তিনি। আর তাতেই তারা চটে যান।

কিছুক্ষণ কথা কাটাকাটির পর ঠাকুররা তাদের বাড়িতে ফিরে যায়। তারপর দলবল আরও বাড়িয়ে কিছুক্ষণের মধ্যেই তারা ফিরে এসে চড়াও হয়।

হামলাকারীরা ওই দলিত মহিলা ও তার বাড়ির লোকজনদের বাঁশ দিয়ে পেটাতে শুরু করে। মাটিতে ফেলে সঙ্গীতা নামের ওই অন্তঃসত্ত্বা দলিত মহিলার পেটে লাথি মারে তারা। তাকে বাঁশ দিয়েও পেটানো হয়।

হাসপাতালে ওই দলিত মহিলা জানান, তিনি পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। তার পেটে লাথি মারা হয়েছে, মাটিতে ফেলে তাকে বাঁশ দিয়েও পেটানো হয়েছে। এর পরেই তার রক্তক্ষরণ হতে শুরু করে।

তিনি আরও জানান, তার স্বামী নীলেশকেও বেধড়ক মারধর করা হয়। আধ ঘণ্টা ধরে মারধর করে ফিরে যায় ঠাকুর সম্প্রদায়ের লোকজন।