মেইন ম্যেনু

মহারথী বধ করে রথীর ‘ছয় যাত্রা’

সাধারণ এক মুস্তাফিজ থেকে বিস্ময়কর মুস্তাফিজ। রাঘব-বোয়ালদের বধ করেই নিজেকে এভাবে চিনিয়েছেন সাতক্ষীরার তরুণ। ছয়টি টুর্নামেন্টের অভিষেকে ছয়জন বাঘা-বাঘা ব্যাটসম্যানকে সাজঘরে ফিরিয়ে তার পথচলা শুরু হয়।

প্রথম শিকার: আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রথম পা রাখা টি-টোয়েন্টি দিয়ে। পাকিস্তানের বিপক্ষে। বিশ্বের অন্যতম সেরা বিপজ্জনক ব্যাটসম্যান আফ্রিদিকে দিয়ে শুরু করেন যাত্রা।

ওয়ানডের প্রথম শিকার: ৫০ ওভারের ক্রিকেটে মুস্তাফিজের অভিষেক ভারতের বিপক্ষে। দুটি দ্বিশতকের মালিক রোহিতকে বোকা বানিয়ে এই দুনিয়ায় যাত্রা শুরু করেন মুস্তাফিজ।

টেস্টের প্রথম শিকার: বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্লাসিক ব্যাটসম্যান দক্ষিণ আফ্রিকার হাশিম আমলাকে দিয়ে সাদা পোশাকে শিকার-উৎসব শুরু করেন কাটার মাস্টার।

বিপিএল: বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) মাঠে নামার আগেই বলে দেন ক্রিস গেইলকে বল করতে মুখিয়ে আছেন। দেখা হতেই হিংস্র এই ব্যাটসম্যানকে বশ মানান তিনি।

বিশ্বকাপ টি-টোয়েন্টি: বিশ্বকাপে অভিষেক হতে একটু দেরি হয়ে যায়। দলের সঙ্গে থেকেও ইনজুরির কারণে কয়েক ম্যাচ পরে মাঠে নামেন মুস্তাফিজ। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে। অজি ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা প্রতিভাবান ব্যাটসম্যান স্টিভেন স্মিথকে সেদিন ভড়কে দেন কাটার মাস্টার।

আইপিএল: ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগেও (আইপিএল) তার যাত্রা শুরু স্বপ্নের মতো। সেরাদের সেরা ব্যাটসম্যান হিসেবে পরিচিত ডি ভিলিয়ার্সকে দিয়ে এই টুর্নামেন্টে পথচলা শুরু মুস্তাফিজের।

এই ছয় জন ব্যাটসম্যানের উইকেট অন্য বোলাররাও আগেপরে নিয়েছেন। কিন্তু মুস্তাফিজের মতো একজন তরুণ ক্রিকেটার যেভাবে তাদের নাজেহাল করে সাজঘরে ফিরতে বাধ্য করেছেন তাও অভিষেকে; তাতে চোখ কপালে না উঠে উপায় কই! মুস্তাফিজ শুরুর এই দিনগুলোতে পৃথিবী জুড়ে বার্তা ছড়িয়ে দিচ্ছেন- এই তো শুরু!