মেইন ম্যেনু

মহিলাদের শ্রোণী অঞ্চলে ব্যথার সম্ভাব্য কয়েকটি কারণ

মানুষের উদরের নীচের অংশটিই হচ্ছে পেলভিস বা শ্রোণীচক্র। মহিলাদের শ্রোণী অঞ্চলে যে অঙ্গগুলো থাকে তা হল- অন্ত্র, মুত্রাশয়, জরায়ু ও ডিম্বাশয়। এই অঙ্গগুলোর কোনটির সমস্যার কারণেই শ্রোণী অঞ্চলে ব্যথা হতে পারে। কোন কোন ক্ষেত্রে এই ব্যথা পেলভিক অস্থির কারণেও হতে পারে যা এই অঙ্গগুলোর পশ্চাতে থাকে। এই অঞ্চল সংযুক্ত মাংসপেশি, স্নায়ু, রক্তনালী ও জয়েন্টের কারণেও ব্যথা হতে পারে। তাই বোঝাই যাচ্ছে যে মহিলাদের পেলভিক পেইন হওয়ার নানাবিধ কারণ থাকতে পারে। পুরুষের চেয়ে মহিলাদেরই বেশি হয়ে থাকে পেলভিক পেইন।

পেলভিক পেইন দুই ধরণের হয়ে থাকে যথা- অ্যাকিউট বা তীব্র ব্যথা ও ক্রনিক বা দীর্ঘস্থায়ী ব্যথা। উৎসের উপর নির্ভর করে এই ব্যথা ভোঁতা বা তীক্ষ্ণ হয়। কখনো কখনো এই ব্যথা নিতম্ব ও উরুতেও ছড়িয়ে যায়। দীর্ঘস্থায়ী ব্যথা একের অধিক কারণে হতে পারে। চলুন জেনে নেই মহিলাদের বিভিন্নপ্রকার শ্রোনিঅঞ্চলের

ব্যথার কারণগুলো সম্পর্কে :

১। আঘাত, ফাইব্রোসিস, চাপ বা ইনট্রাপেরিটোনিয়াল প্রদাহের কারণে ইনফ্লামেশন বা সরাসরি জ্বালাযন্ত্রণা হয় স্নায়ুতে।

২। নরম কঙ্কাল পেশীর সকোচনের কারণে ব্যথা হয়।

৩। তীব্র ব্যথা যা হঠাৎ করেই তৈরি হয় তার কিছু কারণ হচ্ছে-

· এক্টোপিক প্রেগনেন্সি(জরায়ুর বাহিরের দিকের গর্ভাবস্থা)
· পেলভিক ইনফ্লামেটরি ডিজিজ, একে PID ও বলে। প্রজননতন্ত্রের ইনফেকশনের কারণে হয়ে থাকে।
· ওভারিয়ান সিস্টের কারণে হতে পারে।
· গর্ভপাতের ফলে হতে পারে।
· মূত্রনালির সংক্রমণের কারণে হতে পারে।
· ফেলোপিয়ান টিউব বিদারিত হলে।

৪। দীর্ঘস্থায়ী ব্যথার কারণ সমূহ
· মাসিকের ব্যথা
· এন্ডোমেট্ট্রাইওসিস(জরায়ুর বাহিরের এন্ডোমেট্রিয়াল টিস্যুর কারণে)
· ইউটেরাইন ফাইব্রোয়েড(জরায়ুর প্রাচীরের অস্বাভাবিক বৃদ্ধি)
· শ্রোনিঅঞ্চলের অঙ্গগুলোর মধ্যে স্কার টিস্যুর উপস্থিতিতে
· এন্ডোমেট্রিয়াল পলিপের কারণে
· প্রজনননালীর ক্যান্সার

পেলভিক পেইন এর লক্ষণসমূহ :
· স্থানীয় ব্যথা – সাধারণত প্রদাহের কারণে হয়ে থাকে।
· খিঁচ ধরানো ব্যথা – অন্ত্র, মুত্রনালি বা এপেন্ডিক্স এর মত নরম অঙ্গগুলোতে খিঁচুনি হলে এই ধরণের ব্যথা হয়।
· হঠাৎ ব্যথার সুত্রপাত – রক্ত সংবহনে কোন বাঁধার সৃষ্টি হলে রক্তের অভাব তৈরি হয়, তখন এমন ব্যথা হতে পারে।
· ধীরে ধীরে ব্যথা তৈরি হওয়া – এপেন্ডিক্স বা অন্ত্রের বিঘ্নের কারণে এই ধরণের ব্যথা হয়।
· সমগ্র পেট জুড়ে ব্যথা – রক্ত, পুঁজ বা অন্ত্রের বস্তু একত্রিত হলে এমন ব্যথা হয়।
· নড়াচড়া করলে বা পরীক্ষার সময় ব্যথা – উদর গহবরের আস্তরনের জ্বালাযন্ত্রণার কারণে এমন ব্যথা হয়।
রোগ নির্ণয়

চিকিৎসক আপনার ব্যথার সম্পর্কে কিছু প্রশ্ন করবেন যেমন-
§ কখন ও পেটের কোন স্থানে ব্যথা হয়?
§ ব্যথা কতক্ষণ থাকে?
§ ব্যথার অনুভূতি কেমন, অর্থাৎ তীব্র নাকি ভোঁতা?
§ কোন পরিস্থিতিতে ব্যথা শুরু হয়?
§ হঠাৎ করেই ব্যথা শুরু হয় কিনা?
এছাড়াও কিছু টেস্টের মাধ্যমে চিকিৎসক রোগ নির্ণয়ের চেস্টা করেন। টেস্ট গুলো হচ্ছে-
§ ব্লাড টেস্ট
§ প্রেগনেন্সি টেস্ট
§ ইউরিন টেস্ট
§ জরায়ু কোষের কালচার করা
§ আল্ট্রাসাউন্ড
§ কম্পিউটেড টোমোগ্রাফি বা CT Scan
§ MRI বা ম্যাগনেটিক রিজনেন্স ইমাজিং
§ লেপারোস্কপি
§ এক্সরে
§ কোলনোস্কপি
§ সিগ্ময়ডোস্কপি

চিকিৎসা
পেলভিক পেইন এর নির্দিষ্ট চিকিৎসা নির্ভর করে রোগের কারণের উপর। অ্যান্টিবায়োটিক বা অ্যান্টিইনফ্লামেটরি বা পেইনকিলার সেবনের জন্য পরামর্শ দেয়া হয়। এছাড়াও ফিজিকেল থেরাপি ও ব্যয়ামের কথা বলা হয়। পুষ্টির পরিবর্তন ও পরিবেশের পরিবর্তনের ও পরামর্শ দেয়া হয়।
মহিলাদের পেলভিক পেইন খুবই কমন একটি সমস্যা। তবে এর প্রকৃতি ও তীব্রতার বিভিন্নতার জন্য এর কারণ প্রায়ই অস্পষ্ট থাকে।