মেইন ম্যেনু

মাকে নির্যাতন, গায়ে আগুন লাগিয়ে কিশোরীর প্রতিবাদ

মায়ের ওপর কারণে-অকারণে নির্যাতন। ঠেকাতে গেলে বাবার চড়-থাপ্পড়। দিনের পর দিন চোখের সামনে এ অমানবিক দৃশ্য আর সহ্য হয় না। মায়ের করুণ আর্তি সইতে না পেয়ে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়েছে কিশোরী সুর্বণা বিশ্বাস (১৫)। সে এখন একটি ক্লিনিকে জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে।

বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলায় বৃহস্পতিবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।

প্রতিবেশীরা জানান, উপজেলার খড়মখালী গ্রামের বাবুল বিশ্বাস তার স্ত্রী রেণুকা বিশ্বাসের ওপর প্রায়ই নির্যাতন চালাতেন। ছেলে-মেয়েরা ঠেকাতে গেলে তিনি তাদেরও মারধর করেন। বৃহস্পতিবার সকালে বাবুল তার স্ত্রীকে বাইসাইকেলের চেন দিয়ে মারপিট শুরু করেন। এ সময় তাদের মেয়ে চিতলমারী এস এম মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী সুবর্ণা বিশ্বাস ঠেকাতে যায়। ঠেকাতে গেলে তার বাবা তাকেও থাপ্পড় মারেন। এরপর সুবর্ণা ঘরে থাকা কেরোসিন তেল গায়ে ঢেলে আগুন ধরিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়। এ সময় আগুন নেভাতে এসে তার মা রেণুকা বিশ্বাস (৪০) ও ভাই কৃষ্ণ কান্ত বিশ্বাস (২২) আহত হন। পরে তাকে উদ্ধার করে চিতলমারী সদরের একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে চিতলমারী ক্লিনিকের পরিচালক শেখ ফারুক আহম্মেদ জানান, কিশোরী সুবর্ণার শরীরের ৮০ ভাগ ঝলসে গেছে। তার অবস্থা শঙ্কটাপন্ন। তার উন্নত চিকিৎসা প্রয়োজন।