মেইন ম্যেনু

মাত্র ৫ মিনিটে বিশ্ব রেকর্ড করা জাদু (ভিডিওসহ)

মাত্র পাঁচ মিনিটের মধ্যে পৃথিবীর সবথেকে বিস্ময়কর এবং আশ্চর্যজনক জাদু প্রদর্শের মাধ্যমে বিশ্ব রেকর্ড স্থাপন করতে হান্স ক্লক এর প্রচেষ্টা দেখুন। তার এ প্রচেষ্টার ভিতরে ছিলো বিশাল বাক্স শূন্যে ভাসিয়ে তার ভিতরে নিজের আগমন, শূন্য বাক্সে সুন্দরী নারীর আগমন, মস্তকবিহীন শরীরে টেবিল টেনে নেয়া সহ আকর্ষনীয় বিস্ময়কর সব জাদু।

ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে একটি জাদু প্রদর্শনীতে হান্স ক্লক ও তার টিম একটি জাদু প্রতিযোগীতায় অংশ নেন। যেখানে প্রতি টিকিটের মূল্য ছিলো ১০০০ ডলার থাকা সত্বেও ছিল উপচে পড়া ভীর। তিনি ও তার টিম মাত্র ৫ মিনিটে এমন সব জাদু প্রদর্শন করেন, যাতে উপস্থিত দর্শকরা বিস্ময়ে হতভম্ব হয়ে যান।

হান্স ক্লক ২২ ফেব্রুয়ারী ১৯৬৯ সালে নেদারল্যান্ডে জন্মগ্রহন করেন। তার ১২তম জন্মদিনে তিনি এক সেট যাদুর সামগ্রী উপহার পান। তখন থেকে তিনি যাদুর প্রতি আকর্ষন অনুভব করেন এবং যাদুর চর্চা শুরু করেন। যাদু শেখার প্রতি তার একান্ত আগ্রহ দেখে বাবা-মা যাদু শিখতে তাকে উৎসাহ প্রদান করেন।

তিনি বালক বয়স থেকেই পেশাদার যাদুর প্রদর্শনী শুরু করেন। মাত্র ১৪ বছর বয়সে তিনি সমগ্র নেদারল্যান্ড এবং ইউরোপের যৌথ আয়োজনে যাদু প্রদর্শনীতে তরুন চ্যাম্পিয়ন হিসেবে পুরস্কার পান। ১৯৯০ সালে সবথেকে কম সময়ে সবথেকে বেশী যাদু প্রদর্শনের জন্য হান্স এবং তার সহযোগী সিতাহ নেদারল্যান্ডের সবথেকে সম্মানজনক গ্রান্ড প্রিক্স এবং হেন্ক ভারমেযাইডেন পুরস্কার পান। ২৩ বছর বয়সে তিনি ডাচ কমেডিয়ান ডুইনের সাথে ট্যুরে বের হন।

১৯৯৪ সালে তিনি এনবিসি টিভির জন্য একটি লাইভ টিভি প্রোগ্রামে লাস ভেগাসের সিজারস প্যালেস হোটেলের স্টেজ থেকে “পৃথিবীর সেরা যাদু” প্রদর্শনীতে যাদু প্রদর্শন করেন, যে প্রোগ্রাম সমগ্র পৃথিবীতে ৬ কোটি দর্শকদের সরাসরি বিনোদনের খোরাক যুগিয়েছিলো। তারপর তার দ্বিতীয় স্টেজ শো’র জন্য দীর্ঘ বিরতি নেন। ১৯৯৮ সালে রটেরডাম এর লুক্সর থিয়েটারে তার দ্বিতীয় স্টেজ শো প্রদর্শন করেন। যে পোগ্রামের নাম ছিলো “ম্যাজিক লাইভ অন স্টেজ” যেটা তিনি “অসম্ভব যাদু” নামে অনুষ্ঠিত করেছিলেন।

অনেকেরই হয়তো মনে আছে, জার্মানীতে অনুষ্ঠিত ২০০৬ সালের ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে লাইভ প্রোগ্রামে ১৮ ক্যারেট সোনার বিশ্বকাপ ট্রফিকে কাঁচে ঘেরা বক্স থেকে গায়েব করে দেখিয়েছিলেন। ওই পোগ্রাম ১৫২টিরও বেশী দেশে ৫০ কোটিরও বেশী দর্শক সরাসরি উপভোগ করেছিলো।

তবে তার সকল যাদুর ভিতরে ছাপিয়ে গেছে একটি যাদুকে। যেখানে তিনি দেখিয়েছেন, মাথা থেকে কোমড় পর্যন্ত গায়েব -শরীরের একটি মেয়ে শ্যাম্পেইনের একটি টেবিল ঠেলে নিয়ে যাচ্ছে। তাই দেরী না করে দেখে নিন তার অবিশ্বাস্য সেই ভিডিওটি যেখানে তিনি ৫ মিনিটে সবথেকে বেশী যাদু প্রদর্শন করে বিশ্ব রেকর্ড সৃষ্টি করেছেন।

ভিডিওটি উপভোগ করুনঃ