মেইন ম্যেনু

মাদরাসা ছাত্রকে ফ্যানে ঝুলিয়ে ক্রিকেট স্ট্যাম্প দিয়ে পেটালো শিক্ষক

ফেনীতে এক মাদ্রাসা ছাত্রকে ‘ফ্যানের সঙ্গে ঝুলিয়ে’ ক্রিকেট স্ট্যাম্প দিয়ে পেটানোর অভিযোগ উঠেছে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। পালিয়ে বাড়ি যাওয়ার চেষ্টা করায় তাকে নির্যাতন করা হয়েছে বলে জানা গেছে।। ঘটনার পর থেকে শিক্ষক পলাতক রয়েছে।

শিশুটির বাড়ি কুমিল্লা জেলার চৌদ্দগাম উপজেলার জগন্নাথ ইউনিয়নের সাতগরিয়া গ্রামে। বর্তমানে ওই শিশু শিক্ষার্থী ফেনী সদর হাসপাতালে যন্ত্রণায় ছটফট করছে।

শিশুর বাবা এয়াকুব নবী জানায়, ফেনী শহরের পাগলামিয়া সড়ক এলাকার মিছবাহুল কুরআন উলুম ওয়াস সুন্নাহ মাদরাসার হেফজ বিভাগের ছাত্র আরিফুল ইসলাম। শুক্রবার সকালে আরিফ বাড়ি যাওয়ার জন্য ছুটি চাইলে মাদরাসা শিক্ষক মোশাররফ হোসেন তাকে ফ্যানে ঝুলিয়ে ক্রিকেট খেলার ব্যাট ও স্ট্যাম্প দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। ঘটনার পর শনিবার বিকেলে মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে ফেনী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আরিফের শরীরের বিভিন্ন অংশ চাকা চাকা দাগ হয়ে গেছে।

2_109649_1

আরিফুল ইসলামের আত্মীয় কামরুল ইসলাম জানান, এভাবে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে অন্যায়-অত্যাচার চললে আগামীতে ধর্মীয় শিক্ষা থেকে মুখ ফিরিয়ে নিবে সাধারণ মানুষ। এ সকল ঘটনায় দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া উচিত।

আরিফুল ইসলাম জানায়, গত ৩ সপ্তাহ আগে সে ওই মাদরাসায় ভর্তি হয়। গত শুক্রবার বাড়িতে যেতে চাইলে শিক্ষক মোশাররফ তাকে ফ্যানে ঝুলিয়ে স্ট্যাম্প দিয়ে বেধড়ক মারতে থাকেন। একপর্যায় সে বাথরুমে আশ্রয় নিলে অন্য দুই ছাত্রকে দিয়ে ওয়াল টপকিয়ে বের করে এনে দ্বিতীয় দফায় মারধর করে।

ফেনী সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. সরোয়ার জাহান জানান, শিশুটির শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতে চিহ্ন রয়েছে। তার চিকিৎসা চলছে।

ফেনীর সহকারী পুলিশ সুপার সার্কেল আমিরুল হক জানান, এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। অপরাধীদের ছাড় দেয়া হবে না। অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।