মেইন ম্যেনু

মাদাম তুসো কে? কেন তাঁর মিউজিয়ামে এত মোমের মূর্তি?

সম্প্রতি ভারতের প্রধামন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মোমের মূর্তি বসতে চলেছে লন্ডনে৷ এতদিনে তা তৈরিও হয়ে গিয়েছে৷ সিঙ্গাপুর, হংকং, ব্যাঙ্কক হয়ে তা পৌঁছবে লন্ডনে মাদাম তুসোর মোমের জাদুঘরে৷ কিন্তু জানেন কি কে এই মাদাম তুসো? কেনইবা মোমের মূর্তির জাদুঘর গড়লেন তিনি?

মাদাম তুসোর আসল নাম কিন্তু এটা নয়৷ তাঁর নাম মেরি গ্রসহোৎজ৷ মেরিরা ছিলেন ফ্রান্সের বাসিন্দা৷ মাত্র ছয় বছর বয়সে মেরির বাবা পরলোকগমন করেন৷ বাধ্য হয়েই তাঁর মাকে কাজের সন্ধান করতে হয়৷ সুইজারল্যান্ডে ফিলিপ কর্টিয়াস নামে এক চিকিৎসকের বাড়ি হাউসকিপারের কাজ পেয়ে যান তিনি৷ এই চিকিৎসক জানতেন মোমের মূর্তি বানানোর পদ্ধতি৷ ছোট্ট মেরিকে তিনি এই নেশা ধরিয়ে দেন৷ কর্টিয়াস যেমন তেমন ভাস্কর ছিলেন না৷ দক্ষ এই ভাস্কর তাঁর বানানো মোমের মূর্তি দিয়ে প্যারিসে দু’দুটো প্রদর্শনীও করেন৷ মেরিরাও এই সূত্রে আবার প্যারিসে ফিরে আসেন৷

এরপর মেরি নিজে মোমের মূর্তি বানানো শুরু করেন৷ ১৯৭৭ সালে তিনি প্রথম ভলতেয়ারের মূর্তি বানান৷ এরপর একের পর এক রুশো, বেঞ্জামিন ফ্র্যাঙ্কলিন-সহ বিভিন্ন বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বের মোমের মূর্তি তৈরি করেন তিনি৷ ফ্রান্সিস তুসোকে বিয়ে করার পর তিনি নাম বদলে হন মাদাম তুসো৷ তাঁর মোমের মূর্তির সংগ্রহ নিয়ে তিনি ইউরোপ ভ্রমণ করেন৷ ইতিমধ্যে রাজনৈতিক কারণে তাঁর আর ফ্রান্সে ফেরা হয় না৷ লন্ডনেই পাকাপাকিভাবে থেকে যান তিনি৷ বেকার স্ট্রিটে থাকাকালীন তিনি তাঁর মোমের মূর্তির প্রদর্শনী করেন৷

এখন তাই-ই মাদাম তুসোর মিউজিয়াম নামে বিখ্যাত৷ অমিতাভ বচ্চন, শাহরুখ খান, ঐশ্বর্য রাই বচ্চন সহ বহু বিশিষ্ট ভারতীয় এ মিউজিযামে জায়গা পেয়েছেন৷ এবার সে মিউজিয়ামে পা রাখলেন মোদিও৷



« (পূর্বের সংবাদ)