মেইন ম্যেনু

‘মানুষের ভোটের অধিকার রক্ষার্থে নির্বাচনে দাঁড়িয়েছি’

কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীরউত্তম বলেছেন, আমি কালিহাতী উপ-নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছি এমপি হবার জন্য নয়। আমি এখানে ভোটে দাঁড়িয়েছি মানুষের ভোটের অধিকার রক্ষার জন্য। সরকার যদি এ উপ-নির্বাচনে মানুষের ভোট চুরি করতে আসে তবে ভোট চোরদের চিহ্নিত করে কালিহাতীর মা-বোনেরাই গণপিটুনী দিয়ে বিদায় দিবেন।

টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী) উপ-নির্বাচনে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচারনায় মাঠে নেমে শুক্রবার গণসংযোগকালে তিনি এসব কথা বলেন।

শুক্রবার সকালে কৃষক শ্রমিক জনতালীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীরউত্তম কালিহাতীর বাংড়া, দ্বিমুখা, ইছাপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় নির্বাচনী প্রচারণা চালান। এ সময় তিনি গাড়ি থেকে নামলেই বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীকে একনজর দেখার জন্য শিশু-কিশোর, নারী-পুরুষসহ শতশত মানুষ জমায়েত হয়। এমন ১০/১৫টি স্পটে পথসভায় বক্তৃতা করেন বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী।

এদিকে আওয়ামী লীগ মনোনীত হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারী নৌকা প্রতীক নিয়ে বল্লা, রামপুর, ছাতীহাটি, কাগুজী এলাকাসহ বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ চালান। এসময় অনেক নেতাকর্মীরা সোহেল হাজারীকে ফুলের তৈরী নৌকা প্রতীক দিয়ে বরণ করে নেন। সোহেল হাজারী ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট প্রার্থনা করেন এবং সকলের দোয়া চান।

গণসংযোগকালে হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারী বলেন, নৌকা প্রতীক নিয়ে তিনি বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয় লাভ করবেন। তিনি বলেন, আমার প্রতিদ্বন্দি প্রার্থী বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীকে কালিহাতীর ভোটাররা তেমনভাবে গ্রহণ করেনি।

তবে, বিএনএফ প্রার্থী আতোয়ার রহমান খান ও ন্যাশনাল পিপলস পাটির প্রার্থী ইমরুল কায়েসকে মাঠে দেখা যায়নি।



« (পূর্বের সংবাদ)