মেইন ম্যেনু

মানুষ তৈরি করল ‘ড্রাগনের নিঃশ্বাস’!

রেকর্ড ভঙ্গকারী এই লঙ্কাটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘ড্রাগন’স ব্রেথ’ বা ‘ড্রাগনের নিঃশ্বাস’। এই লঙ্কা মুখে দিলে আক্ষরিক অর্থেই লঙ্কাকাণ্ড ঘটে যাবে বলে মনে করছেন গবেষকরা। গত সাত বছর ধরে চেষ্টায় ছিলেন। অবশেষে তার গবেষণা সফল। ব্রিটেনের নর্থ ওয়েলসের সেন্ট অ্যাসাফের মাইক স্মিথ, বিশ্বের সব থেকে ঝাল লঙ্কাটিকে তার সবজি বাগানে ফলাতে সমর্থ হয়েছেন বলে জানিয়েছে সে দেশের একাধিক সংবাদ মাধ্যম।

ঝাল লঙ্কার যাবতীয় রেকর্ড ভঙ্গকারী এই লঙ্কাটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘ড্রাগন’স ব্রেথ’ বা ‘ড্রাগনের নিঃশ্বাস’। এই লঙ্কা মুখে দিলে আক্ষরিক অর্থেই লঙ্কাকাণ্ড ঘটে যাবে বলে মনে করছেন সমঝদাররা। এর স্বাদ নিতে এক ফোঁটা জিভে ঠেকিয়েছিলেন স্মিথ, তার পরে তার জ্বালা থামানোই দায় হয়ে ওঠে। অনুভূতির দিক থেকে এই লঙ্কা এমনই যে, এর ঝাল একবার জিভে গেলে বাড়তেই থাকে বলে জানিয়েছেন স্মিথ। ড্রাগনস ব্রেথ-এর নির্যাস জলে ফেললে তা সহজে গলে যায় না। বেশ কিছুক্ষণ তাকে আলাদা করে দেখা যায়।

পেশায় শেফ স্মিথ জানিয়েছেন, নটিংহাম ট্রেন্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগিতায় উৎপাদিত এই লঙ্কা মোটেও খাওয়ার জন্য নয়। এর ব্যবহারের বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে চিকিৎসা বিজ্ঞানে। এই লঙ্কা অ্যানাসথেশিয়ার কাজে প্রযুক্ত হতে পারে। কারণ এই লঙ্কার নির্যাস ত্বকে লাগালে তা সাময়িকভাবে ত্বককে অনুভূতি শূন্য করে দেয়। যে সব মানুষের অ্যানাসথেটিকস-এ অ্যালার্জি রয়েছে, তাদের উপরে প্রয়োগ করা যেতে পারে ‘ড্রাগনের নিঃশ্বাস’। উন্নয়নশীল দেশগুলোতে এর প্রয়োগ ব্যাপক হতে পারে, কারণ এটি সস্তা।

২৩-২৭ মে চেলসিতে অনুষ্ঠেয় এক ফ্লাওয়ার শোতে এই লঙ্কা জনসমক্ষে আনা হবে বলে জানিয়েছে নর্থ ওয়েলস ডেলি পোস্ট।

সূত্র : এবেলা






মন্তব্য চালু নেই