মেইন ম্যেনু

মামলায় জিতে ক্ষতিপূরণ দান করলেন মেসি

২০১৪ বিশ্বকাপে হারের পর অনেকেই আর্জেন্টিনা তারকা লিওনেল মেসির সমালোচনা করেছেন। কিন্তু মাদ্রিদের একটি পত্রিকা মেসিকে নিয়ে অবমাননাকর লেখা প্রকাশ করায় আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন তিনি। মানহানি মামলা ঠুকে দিয়েছিলেন প্রতিবেদক ও পত্রিকার বিরুদ্ধে। অবশেষে সেই মামলায় জিতেছেন বার্সা তারকা। আর ক্ষতিপূরণ হিসেবে পাওয়া প্রায় ৬৫ হাজার ইউরো একটি দাতব্য প্রতিষ্ঠানে দান করে দিয়েছেন।

২০১৪ বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচে জার্মানির কাছে হেরেছিল মেসির আর্জেন্টিনা। এরপর আলফোনসো উসিয়া নামের এক সাংবাদিক মাদ্রিদ ভিত্তিক পত্রিকা লা রাজোনে একটি কলাম প্রকাশ করেন। তাতে মেসির তীব্র সমালোচনা করা হয়। ছোট সময় মেসিকে চিকিৎসার জন্য যে হরমোন দেয়া হয় সেই প্রসঙ্গ তুলে তাকে ‘নানদ্রোলোনো’ (এক ধরনের ঔষধ, যা সাধারণত খেলায় পারফরম্যান্স বাড়ানোর জন্য ব্যবহার করা হয়) বলা হয়।

১৩ বছর বয়সে মেসি তার জন্মভূমি রোজারিও ছেড়ে বার্সেলোনায় যোগ দিয়েছিলেন। তার হরমোন চিকিৎসায় তাকে প্রতিমাসে ৯০০ ডলার পরিশোধ করেছিল কাতালান ক্লাবটি। এই হরমোন গ্রহণে কোনো নিয়মের লঙ্ঘন হয়নি। ২৮ বছর বয়সী এই ফুটবলার কখনো ডোপিং পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ হননি।

পত্রিকায় যে কলাম ছাপা হয়েছিল তা নিয়মবহির্ভুত বলে জানিয়েছেন বার্সেলোনার একটি আদালত। তাই মেসিকে ৬৪ হাজার ৫৯০ ডলার ক্ষতিপূরণ দিতে পত্রিকার সম্পাদক ও সাংবাদিক উসিয়াকে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

এই অর্থ দাতব্য প্রতিষ্ঠান ‘ডক্টরস উইদাউট বর্ডারস’কে দান করা হবে।



« (পূর্বের সংবাদ)