মেইন ম্যেনু

মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে জাবির চার শিক্ষার্থীর আমরণ অনশন

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাসভবন ভাঙচুর ও শিক্ষকদের ওপর হামলার অভিযোগে শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে আমরণ অনশনে করছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের চার শিক্ষার্থী। শনিবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে তারা এই আমরণ অনশন শুরু করেন।

অনশনকারী চার শিক্ষার্থীরা হলেন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের ৪০ তম আবর্তনের পূজা বিশ্বাস, ইংরেজি বিভাগের ৪২ তম আবর্তনের সর্দার জাহিদ, একই বিভাগের ৪২ তম আবর্তনের তাহমিনা জাহান তুলি ও আইন ও বিচার বিভাগের ৪৩ তম আবর্তনের খান মুনতাসির আরমান।

এদিকে চার শিক্ষার্থীর আমরণ অনশনের মুখে রবিবার জরুরি সিন্ডিকেট ডাকেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম। রোববার দুপুর একটা থেকে সন্ধ্যা পৌনে ছয়টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সিনেট হলে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে মামলার পরবর্তী করণীয় এবং এ সংশ্লিষ্ট সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে দীর্ঘ আলোচনা হয়। আলোচনায় শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার না করার সিদ্ধান্তে অনড় থাকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

সিন্ডিকেট সভা শেষে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ‘মামলাটি এখন রাষ্ট্রের হাতে চলে গেছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সেখানে হস্তক্ষেপের সুযোগ নেই। তবে আমরা মামলা সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ করবো যেন কোনও নিরপরাধ শিক্ষার্থী হয়রানির শিকার না হয়।’

অনশনের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘যেসব শিক্ষার্থী অনশন করছে তাদেরকে অনশন প্রত্যাহার করতে অনুরোধ জানানো হবে।’

জানা গেছে, শনিবার বেলা ২টার দিকে সর্দার জাহিদ একাই অনশনে বসেন। পরে বিকাল ৪টার দিকে পূজা বিশ্বাস এবং রাত ১২ টায় যোগ দেন তাহমিনা জাহান তুলি। সর্বশেষ আজ রবিবার তাদের সাথে যোগ দেন আইন ও বিচার বিভাগের শিক্ষার্থী খান মুরতাসির আরমান। অনশনকারীদের মধ্যে সরদার জাহিদুল ইসলাম ছাড়া অন্য তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা নেই।

সর্দার জাহিদ বলেন, সামনে আমার ফাইনাল পরীক্ষা কিন্তু মামলার কারণে হয়রানির শিকার হচ্ছি। ফলে স্বাভাবিকভাবে পড়াশুনায় মনোযোগ দিতে পারছি না। সামাজিক এবং পারিবারিকভাবে হেনস্থার শিকার হচ্ছি। তাই অবিলম্বে মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে আমরণ অনশনে যেতে বাধ্য হয়েছি।

অনশনকারী অপর তিন শিক্ষার্থী জানান, মামলার আসামী না হয়েও প্রশাসনের দায়ের করা মিথ্যা মামলার প্রতিবাদ ও তা প্রত্যাহারের দাবিতে অনশনকারীদের প্রতি সংহতি জানিয়ে তারা অনশন শুরু করেন।

অনশনকারী শিক্ষার্থীরা শনিবার রাতে শহীদ মিনারেই রাত্রি যাপন করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডি ও নিরাপত্তা কর্মকর্তারা সেখানে অবস্থান করছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম এসে মামলা প্রত্যাহার করার ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত এ আমরণ অনশন চলবে বলেও জানিয়েছেন তারা।

দীর্ঘ ছুটি শেষে ক্যাম্পাস খোলার পর শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে গত ৯ জুলাই মানববন্ধন ও ১১ জুলাই মৌন মিছিল এবং ১৩ জুলাই বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই