মেইন ম্যেনু

মার্কিন সতর্কতায় ক্ষোভ মন্ত্রিসভায়

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তাদের নাগরিকদের বাংলাদেশ ভ্রমণে সতর্কতা নবায়ন করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মন্ত্রিসভার সদস্যরা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ মন্ত্রিপরিষদের কয়েকজন সদস্য এজন্য যুক্তরাষ্ট্রের কড়া সমালোচনা করেছেন। বলেছেন, দেশটি বাংলাদেশের বিরুদ্ধে আগেও ষড়যন্ত্র করেছে, এখনও সেই ধারা অব্যাহত রাখছে বলেও মন্তব্য করেন কেউ কেউ।

সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সভাপতিত্ব করেন। বৈঠকে অনানুষ্ঠানিক আলোচনায় উঠে আসে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সতর্কতা নবায়ন প্রসঙ্গটি।

বাংলাদেশ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র নতুন করে কোনো যড়যন্ত্র করছে কি না তা পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে খতিয়ে দেখতে বলা হয়েছে। বৈঠকে উপস্থিত একাধিক সদস্য বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল মন্ত্রিসভাকে জানান, দেশের পরিস্থিতি সম্পূর্ণ সরকারের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। বিদেশিদের জন্য নিরাপত্তা আগের চেয়ে আরও বাড়ানো হযেছে। সরকারি নিরাপত্তায় বিদেশিরা নিরাপদবোধ করছেন। ঢাকার বাইরে নিয়োজিত থাকা কিছু পশ্চিমা নাগরিককে নিয়ে আসা হয়েছে রাজধানীতে। নতুন করে সতর্কতা জারির মতো কোনো পরিস্থিতি দেশে নেই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক মন্ত্রী জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছেন, ১৯৭১ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আমাদের অনেক বিরোধিতা করেছে। তারা আমাদের পক্ষ না হয়ে পাকিস্তানিদের হয়ে কাজ করেছে এবং নৌবহর পাঠিয়েছে। তখনও তারা বাংলাদেশে বিরুদ্ধে কিছু করতে পারেনি, এখনও পারবে না।”

প্রধানমন্ত্রীর পর বৈঠকে উপস্থিত সিনিয়র কয়েকজন মন্ত্রীও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেন। দেশটি “ষড়যন্ত্রের” ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান কেউ কেউ।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী মন্ত্রিসভাকে জানান, যুক্তরাষ্ট্র নতুন কোনো তথ্যের ভিত্তিতে সতর্কবার্তা দেয়নি। তারা এ ব্যাপারে ব্যাখ্যা দিয়েছে।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি দুই বিদেশি নাগরিক হত্যাকাণ্ডের পর বিভিন্ন দেশ বাংলাদেশে তাদের নাগরিকদের ভ্রমণে সতর্কতা জারি করে। এর মধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও রয়েছে। তবে পরিস্থিতি মোটামুটি স্বাভাবিক হয়ে আসার পর গত শনিবার রাতে মার্কিন নাগরিকদের জন্য নিরাপত্তা বার্তা দেওয়া হয় আবার। এতে বিদেশিদের ওপর হামলার আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়। মার্কিন এই নতুন সতর্কবার্তায় ক্ষুব্ধ হয় বাংলাদেশ সরকার। সরকারের কয়েকজন সিনিয়র মন্ত্রী এর কড়া সমালোচনা করেন। এটাকে মার্কিন যুক্তরাষ্টের বাড়াবাড়ি এবং নতুন ষড়যন্ত্র বলেও আখ্যায়িত করেন তারা।

তবে গতকাল রবিবার ঢাকাস্থ মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শিয়া ব্লুম বার্নিকাট এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের জানান, যুক্তরাষ্ট্র নতুন করে কোনো সতর্কবার্তা দেয়নি। আগের সতর্কবার্তা নবায়ন করা হয়েছে মাত্র।ঢাকাটাইমস