মেইন ম্যেনু

মালালা হত্যাচেষ্টায় সাজাপ্রাপ্ত ৮ জঙ্গি ‘গোপনে মুক্ত’

পাকিস্তানের নারীশিক্ষা আন্দোলনকর্মী ও শান্তিতে নোবেলজয়ী মালালা ইউসুফজাইয়ের হত্যাচেষ্টায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত ১০ জঙ্গির মধ্যে আটজনকে ‘গোপনে খালাস’ দেওয়া হয়েছে।

বিশেষ সূত্রের বরাত দিয়ে বিবিসি শুক্রবার এ খবর জানিয়েছে। মালালা হত্যাচেষ্টার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় চলতি বছরের এপ্রিলে দেশটির সন্ত্রাসবিরোধী একটি বিশেষ আদালত ওই ১০ জনকে যাবজ্জীবন (২৫ বছর জেল) কারাদণ্ড দিয়েছেন বলে তখন খবর বের হয়।

কিন্তু বিশেষ সূত্র বিবিসিকে নিশ্চিত করেছে যে, সে সময় শুধুমাত্র দুই জঙ্গিকে বিচারে তোলা হয়েছিল এবং তাদের সাজা দেওয়া হয়েছিল।

ব্যাপক গোপনীয়তার সঙ্গে ওই বিচারকাজ চলে। সেখানে সাংবাদিক ও অন্যান্য জনসাধারণের প্রবেশাধিকার ছিল না। ফলে বিচারের রায়ের বিষয়টি নিয়ে সন্দেহ ছিল অনেকের।

লন্ডনে পাকিস্তানি দূতাবাসের মুখপাত্র মুনির আহমেদ শুক্রবার বলেন, প্রমাণের অভাবে মালালা হত্যাচেষ্টার অভিযোগ থেকে আটজনকে খালাস দেওয়া হয়েছে।

২০১২ সালের অক্টোবরে সোয়াত ভ্যালির মিনগোড়া শহরের নিজের স্কুল থেকে বাসায় ফেরার পথে মালালাকে খুব কাছ থেকে গুলি করে সন্ত্রাসীরা। কিন্তু তিনি প্রাণে বেঁচে যান। বর্তমানে তিনি লন্ডনে পরিবারসহ বসবাস করছেন।

মাত্র দুইজনের সাজা এবং অন্যদের মুক্তি দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সোয়াতের পুলিশ প্রধান সালেম মারওয়াত।

তেহরিক-ই-তালেবান পাকিস্তান (টিটিপি) ওই হামলার দায় স্বীকার করে। মালালারে ওপর হামলার পর বেশ কিছু তালেবান জঙ্গিকে গ্রেফতার করে সেনাবাহিনী।

নারী ও শিশুশিক্ষায় অবদান রাখার জন্য ২০১৪ সালে ভারতের সমাজকর্মী কৈলাস সত্যার্থীর সঙ্গে যৌথভাবে নোবেল শান্তি পুরস্কার পান ১৮ বছরের মালালা।