মেইন ম্যেনু

মাশরাফির ঈদের নামাজ আদায়

নড়াইল কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদের প্রধান জামায়াতে ঈদের নামাজ আদায় করছেন বাংলাদেশ অনডে ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।

শনিবার সকাল ৮টায় ঈদ জামায়াতের কিছুক্ষণ আগে মামা নাহিদসহ মাশরাফি ঈদগাহ ময়দানে উপস্থিত হন। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন আত্মীয় স্বজনসহ বন্ধুরা।

মাথায় সাদা টুপি, হালাকা সোনালি রঙের পাঞ্জাবি, সাদা পায়জামা আর পায়ে ছিল কালো স্যান্ডেল।

ঈদের নামাজ শেষে মুসল্লি, আত্মীয় স্বজনসহ বন্ধুদের সঙ্গে ঈদের কোলাকুলি করেন। সেখান থেকে চলে আসেন পৌর কবরস্থানে মরহুম আত্মীয়-স্বজনের কবর জিয়ারত করতে। সেখান থেকে চলে আসেন আজকের মাশরাফি হওয়ার পেছনে যে মানুষটির দীর্ঘ পরিশ্রম আর সাধনা রয়েছে তার মামা নাহিদের বাসায়। সেখানে এসে সবার সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন। কথা বলেন ক্রিকেট ভক্ত অনুরাগীদের সঙ্গে। ভক্তদের আবদারে কারো কারো সঙ্গে সেলফিতেও অংশগ্রহণ করেন। কথা বলেন উপস্থিত সাংবাদিকদের সঙ্গেও।

ওয়ানডে ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা বলেন, ‘বাংলাদেশ ক্রিকেট দল যেকোনো সময়ের চেয়ে অনেক ভালো খেলছে।’

সামনে অনুষ্ঠিতব্য টেস্টম্যাচে আরো ভালো খেলার প্রত্যয় ব্যক্ত করে তিনি বলেন, ‘নড়াইলসহ দেশবাসীর অনুপ্রেরণা তাদের আন্তরিক ভালোবাসা সব সময় আমাদের ছিল বলেই পাকিস্তান, ভারত, সম্প্রতি দক্ষিণ আফ্রিকারমতো ক্রিকেট দলকে পরাজিত করা সম্ভব হয়েছে।’

দেশবাসীকে ঈদ উল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়ে নড়াইল এক্সপ্রেস খ্যাত মাশরাফি বিন মর্তুজা বলেন, ‘আজকের দিন মা-বাবা, স্ত্রী-সন্তান, বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে আনন্দ করে সময় কাটাবো।’

এদিকে, কেন্দ্রীয় ঈদগাহে ঈদের নামাজ আদায় করেন জেলা প্রশাসক মো. হেলাল মাহমুদ শরীফ, পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম, পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র মোস্তফা কামাল মোস্ত, জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন শ্রেণী ও পেশার লোকজন ঈদের নামাজ আদায় করেন।

এছাড়া সকাল ৮টা ১৫ মিনিটে সদর থানা মসজিদে ঈদের জামায়াত অনুষ্ঠিত হয়। সকাল সাড়ে ৮টায় রুপগঞ্জ জামে মসজিদ, পুরাতন বাসটারমিনাল জামে মসজিদ, আনসার অফিস ঈদগাহ ময়দান, রুপগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ি জামে সমজিদ ও আলাদাৎপুর জামে মসজিদে ঈদের জামায়াত অনুষ্ঠিত হয়।

সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে পুলিশ লাইন ঈদগাহ ময়দান ও বরাশুলা ঈদগাহ ময়দানে ঈদের জামায়াত অনুষ্ঠিত হয়।
সকাল ৯টায় মহিলা মাদরাসা, ভওয়াখালী ঈদগাহ, ভওয়াখালী উত্তরপাড়া ঈদগাহ, জমিদার বাড়ি ঈদগাহ ময়দান, মছিমদিয়া ঈদগাহ ময়দান, কুড়িগ্রাম পশ্চিমপাড়া এবং বিজয়পুর ঈদগাহ ময়দানে ঈদের জামায়ত অনুষ্ঠিত হয়।

অপরদিকে, পবিত্র ঈদ উল ফিতর উপলক্ষে নড়াইল পৌরসভা, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে প্রধান প্রধান সড়কে তোরণ নির্মাণ, ব্যানার, ফেস্টুন, ফ্লাগ ও রাতে আলোকসজ্জা করা হয়।