মেইন ম্যেনু

মাশরাফির উদযাপনে ক্ষেপে গেলেন বাটলার

২৮তম ওভারের খেলা। উইকেটে রয়েছেন ইংল্যান্ডের শেষ ভরসার প্রতীক জস বাটলার। তিনি ব্যাট করছেন ৫৭ রানে। উইকেটে টিকে থাকতে পারলে ইংল্যান্ড জয়ের কাছাকাছি চলে আসবে। এ পরিস্থিতিতে বল করতে আসলেন তাসকিন আহমেদ। প্রথম বলেই তাসকিনের বলে পরাস্ত হলেন বাটলার। জোরালো আবেদন। আম্পায়ার আউট দিলেন না। বাংলাদেশ রিভিউ নিলো।

থার্ড আম্পায়ার রিপ্লাই দেখে দিলেন আউটের সিদ্ধান্ত। সেটা আম্পায়ার শরফুদ্দৌলা ঘোষণা করতেই বুনো উল্লাসে লাফিয়ে ওঠেন তাসকিন। শুন্যে ঘুসি ছুড়ে দিয়ে আরও বুনো উল্লাসে মেতে উঠলেন মাশরাফি। পুরো দলই যেন বিজয়ের আনন্দে তখন উদ্বেলিত।

বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের উল্লাসের ভঙি কোনভাবেই পছন্দ হয়নি ইংলিশ অধিনায়কের। বিশেষ করে মাশরাফির হাত ঘুরিয়ে শূন্যে ঘুসি মারার ভঙ্গিটা। ক্ষেপে গেলেন বাটলার। এমনকি তেড়েও গেলেন। তার ক্ষেপাটে আচরণ দেখে মাঝে এসে দাঁড়ান আম্পায়ার শরফুদ্দৌলা। মাশরাফিও কিছু বুঝতে না পেরে সামনে এগিয়ে আসেন।

তবে আম্পায়ারদের হস্তক্ষেপে ঘটনা ওখানেই থেমে যায়। বিড় বিড় করতে করতে মাঠ ত্যাগ করতে দেখা যায় ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলারকে। এ সময় দর্শকদেরও ধুয়ো ধ্বনি দিতে দেখা যায়।