মেইন ম্যেনু

মাশরাফির তোপে ধুঁকছে ইংল্যান্ড

ইংল্যান্ডের মতো শক্তিশালী প্রতিপক্ষের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথমটিতে হেরে এমনিতেই চাপের মুখে বাংলাদেশ। টিকে থাকার লড়াইয়ে টাইগারের পূঁজি মাত্র ২৩৮ রান। এমন মাঝারি মানের সংগ্রহ নিয়েও দমে যায়নি বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ইনিংসের শুরু থেকেই ইংলিশ শিবিরকে চেপে ধরেছে টাইগাররা। ব্যাটিংয়ে ‘ঝড়’ তোলার পর বল হাতেও বাংলাদেশকে দুর্দান্ত শুরু এনে দেন দলনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।

মিরপুরের শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৩৮ রানের মাঝারি মানের সংগ্রহ দাঁড় করায় বাংলাদেশ। জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে মাশরাফি ও সাকিবের তোপের মুখে পড়ে ২৪ রান তুলতেই তিন শীর্ষ ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে ধুঁকছে ইংল্যান্ড।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ১০ ওভার শেষে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ৪ উইকেট হারিয়ে ৩১ রান। জনি বেয়ারস্টো ৭ ও জস বাটলার ৪ রান নিয়ে ক্রিজে রয়েছেন। বেন ডাকেট ০, জেসন রয় ১৩, বেন স্টোকস ০ ও ভিন্স ফিরেছেন ৫ রান করে।

২৩৯ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে চতুর্থ ওভারেই উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। মাশরাফির করা চতুর্থ ওভারের চতুর্থ বলে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে মোসাদ্দেক হোসেনের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন ভিন্স। পরের ওভারের পঞ্চম বলে ডাকেটকে বোল্ড করে বাংলাদেশকে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ এনে দেন সাকিব।

এরপর ঘুরে দাঁড়ানোর আগেই ইংলিশ শিবিরে ফের আঘাত হানেন মাশরাফি। টাইগার অধিনায়কের করা অষ্টম ওভারের পঞ্চম বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়ে রয় ফিরে গেলে উল্লাসে মেতে ওঠে মিরপুরের হোম অব ক্রিকেট।

শুরুতেই প্রতিপক্ষের তিন উইকেট তুলে নিয়ে অনেকটাই চাঙা হয়ে ওঠে বাংলাদেশ শিবির। অন্যদিকে কোণঠাসা হয়ে পড়ে ইংলিশরা। এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে এক ওভারের ব্যবধানে আক্রমণে এসে ফের সফরকারী শিবিরে হান দেন মাশরাফি। মাশরাফির করা দশম ওভারের চতুর্থ বলের কোনো জবাবই জানা ছিল না স্টোকসের। ফলে সরাসরি বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন প্রথম ম্যাচে সেঞ্চুরি করা এই স্টাইলিশ ব্যাটসম্যান।

এর আগে ১৬৯ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকা বাংলাদেশকে খাদের কিনার থেকে উদ্ধার করেন মাশরাফি। অষ্টম উইকেটে নাসির হোসেনকে নিয়ে ৪৯ বলে ৬৯ রানের দারুণ এক জুটি গড়েন ম্যাশ। মাশরাফির আগে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ দায়িত্বশীল ইনিংস উপহার দেন।

বাংলাদেশের হয়ে মাহমুদউল্লাহ ৭৫ ও মাশরাফি করেন ২৯ বলে ৪৪ রান। এছাড়া মোসাদ্দেক ২৯ ও নাসির করেন ২৭ রান।

ইংল্যান্ডের হয়ে ক্রিস ওকস, জ্যাক বল ও আদিল রশিদ দুটি করে উইকেট নেন। একটি উইকেট নেন বেন স্টোকস।

সংগ্রহটা মাঝারিই! তবে লড়তে পারলে ক্রিকেটে নিজেদের দিনে সবই সম্ভব! ব্যাটিংয়ে হয়নি, বোলিংয়ে তাই নিজেদের দিনকে রাঙাবার পালা তাসকিন-সাকিবদের। নয়তো এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ হাতছাড়া! ম্যাচের দ্বিতীয় ধাপে টাইগার বোলারদের এখন কঠিন পরীক্ষাই দিতে হবে।