মেইন ম্যেনু

মা-বাবা তারাবীহ নামাজে; মেয়েকে ধর্ষণ!

দিনাজপুরের পার্বতীপুরে এক কলেজ ছাত্রী ধর্ষিত হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার (১৬-৬-১৬) দুপুরে ধর্ষক সাজ্জাদ হোসেন বুলুকে দিনাজপুর জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। ধর্ষিতা পার্বতীপুর ডিগ্রী কলেজের এইচএসসি ২য় বর্ষের ছাত্রী।

এঘটনায় পার্বতীপুর মডেল থানায় গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় ধর্ষিতা বাদী হয়ে ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী) ০৩ এর ৯ (১) ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন। পুলিশ অভিযান চালিয়ে রাতেই উপজেলার বেলাইচন্ডি ইউনিয়নের হরিরামপুর ভাটিপাড়া এলাকা থেকে ধর্ষক সাজ্জাদ হোসেন বুলু প্রামানিককে (২৮) গ্রেফতার করে। ধৃত সাজ্জাদ উপজেলার বেলাইচন্ডি ইউনিয়নের উত্তর হরিরামপুর ভাটিপাড়া গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, পার্বতীপুর উপজেলার বেলাইচন্ডি ইউনিয়নের উত্তর হরিরামপুর ভাটিপাড়া গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে একই গ্রামের জনৈক ব্যক্তির মেয়ে তার বড় ভাইয়ের বন্ধুর সুবাদে বাড়ীতে আসা যাওয়া করতো।

গত ১৪ জুন রাত সাড়ে ৯টার দিকে মেয়েটির বাবা তারাবির নামাজ পড়তে মসজিদে যান। এসময় তার মা ও ভাবী পাশের রুমে নামাজ পরছিলেন। বাড়ী ফাকা থাকায় সাজ্জাদ মেয়েটির ঘরে প্রবেশ ঢুকে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায় বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়।

পার্বতীপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক আঃ হামিদ জানান, এঘটনায় থানায় ভিকটিম বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। বুধবার রাতে ধর্ষককে গ্রেফতার করে বৃহস্পবিার দিনাজপুর কোর্টের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।