মেইন ম্যেনু

মা-মেয়ের একই প্রেমিক, তাই মেয়েকে হত্যা

সৌদি আরবে থাকাকালীন ফেসবুকে পরিচয় হয় এক নারীর সঙ্গে। ধীরে ধীরে তা প্রেমের দিকে গড়ায়। তারপর দেশে ফিরে কথা হয় ওই নারীর মেয়ের সঙ্গে। তৈরি হয় তাদের মধ্যেও সম্পর্ক। অর্থাৎ মা ও মেয়ের একই প্রেমিক।

অবশ্য মায়ের থেকে এক ধাপ উপরে মেয়ে। সে প্রেমিকের নাম নিজের হাতে খোদাই করে নিয়েছে। আর সেটা দেখে সহ্য করতে না পেরেই ঈর্ষাবশত মেয়েকে খুন করেন মা।

অবশ্য নিজের দোষ ঢাকতে মেয়ে আত্মহত্যা করেছে বলেই সবাইকে জানিয়েছেন মা। ভারতের চণ্ডীগড়ের এক নারীর বিরুদ্ধে এমন অভিযোগই উঠেছে। অভিযুক্ত ওই নারী ও তার প্রেমিককে গ্রেপ্তারও করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, অভিযুক্ত নারীর সঙ্গে ফেসবুকে যোগাযোগ হয় আরব প্রবাসী ওই যুবকের। গতবছর তাদরে মধ্যে প্রথম আলাপ। তার দু’মাস পরই দেশে ফিরেন ওই যুবক। তখন পরিচয় হয় ওই নারীর মেয়ের সঙ্গে। তার সঙ্গেও তৈরি হয় সম্পর্ক। এ নিয়েই বিধবা মা ও মেয়ের মধ্যে বিরোধ বাঁধে।

এরপর একদিন মাকে নিজের প্রেমিকের সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলে মেয়ে। তা নিয়েও ঝগড়া হয় দু’জনের মধ্যে। তরপরই সে নিজের হাতে খোদাই করিয়ে নেয় প্রেমিকের নাম।

তবে মেয়ের হাতে নিজের প্রেমিকের নাম দেখে আর মাথা ঠিক রাখতে পারেননি মা। নিজের হাতেই খুন করেন মেয়েকে। অবশ্য ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে মেয়ের নামে একটি সুইসাইড নোট লিখে বিষয়টি আত্মহত্যা বলে চালাতে চান তিনি। পুলিশ ওই নোটটি উদ্ধারও করেছে।