মেইন ম্যেনু

মিনার দুর্ঘটনাকে নিয়তি বললেন গ্র্যান্ড মুফতি

সৌদি আরবের মিনায় প্রতীকী শয়তানকে পাথর মারতে গিয়ে পদদলিত হয়ে সাত শতাধিক মানুষের মৃত্যুর ঘটনাকে নিয়তি বলে আখ্যায়িত করেছেন দেশটির গ্র্যান্ড মুফতি শেখ আবদুল আজিজ বিন-আবদুল্লাহ আল-শেখ। এই ঘটনা “মানুষের নিয়ন্ত্রণের বাইরে” ছিল বলেও মনে করেন তিনি।

বিবিসির খবরে বলা হয়, সৌদি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যুবরাজ মোহাম্মদ বিন নায়েফকে তিনি বলেন, এদের ভাগ্য এবং নিয়তিতে যা লেখা ছিল, তা ছিল অবশ্যম্ভাবী। এজন্যে সৌদি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দোষী হতে পারেন না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

ইরান এবং আরও কয়েকটি দেশ এই ঘটনায় গাফিলতির অভিযোগে এনে সৌদি কর্তৃপক্ষের তীব্র সমালোচনা করে। এর পরিপ্রেক্ষিতে গ্র্যান্ড মুফতি এসব কথা বলেন।

গত বৃহস্পতিবার ওই ঘটনায় এ পর্যন্ত সাতশোর বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। আহতের সংখ্যা আটশোর বেশি।

এদিকে একজন সৌদি যুবরাজের গাড়ি বহরের জন্য রাস্তা বন্ধ রাখার কারণেই সেদিন ভিড়ের মধ্যে বিশৃঙ্খলা এবং পদদলনের ঘটনা ঘটে বলে যে অভিযোগ উঠেছে তাকে ‘গুজব’ বলে উড়িয়ে দিয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ।

লন্ডনে সৌদি রাষ্ট্রদূত প্রিন্স মোহাম্মদ বিন নওয়াফ আল সউদ এক বিবৃতিতে এরকম গুজব ছড়ানো থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, সৌদি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মেজর জেনারেল মানসুর আল-তুর্কী এর আগে সুনির্দিষ্টভাবে এই অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছেন। কারণ সৌদি আরবের ঊর্ধ্বতন ব্যক্তিরা কখনোই ওই এলাকায় গাড়ি নিয়ে যান না।

ইরানপন্থী টেলিভিশন চ্যানেল “প্রেস টিভি” এবং লেবাননের “আদিয়ার” টিভি এই গুজব ছড়াচ্ছে বলে বিবৃতিতে অভিযোগ করা হয়।