মেইন ম্যেনু

মিনা ট্রাজেডি : লাশবাহী প্রথম বিমান ইরানে পৌঁছেছে

সৌদি আরবের মক্কার মিনায় শয়তানকে পাথর মাড়তে যাওয়ার পথে পদদলনে নিহত হওয়ার নয়দিন পর শনিবার লাশবাহী একটি বিমান ইরানের রাজধানী তেহরান পৌঁছেছে। দুই দেশের মধ্যকার উত্তেজনার মধ্যেই প্রথম দফায় ১০৪টি লাশ ইরানে এসে পৌঁছল।

শনিবার লাশ গ্রহণ করতে বিমানবন্দরে যান ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানিসহ দেশটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। ইরানের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম এ খবর নিশ্চিত করেছে।

সৌদি কর্তৃপক্ষ বলেছে মিনায় পদদলনে ৭৬৯ জন হাজির মৃত্যু হয়েছে। তবে ইরানের দাবি এ সংখ্যা আরো অনেক বেশি। মক্কার একটি হাসপাতাল সূত্র আল জাজিরাকে জানিয়েছে, মৃত্যুর সংখ্যা নিশ্চিতভাবেই হাজারের উপরে ছাড়িয়ে যাবে। ইরানের দাবি তাদের দেশের ৪৬৪ জন হাজি ওই ঘটনায় নিহত হয়েছেন।

তেহরান অভিযোগ করে আসছে, সৌদি সরকারের হজ ব্যবস্থাপনায় ত্রুটির কারণেই ইতিহাসের অন্যতম এই বিয়োগান্ত ঘটনা ঘটেছে। সৌদি রাজপরিবার এর দায় এড়াতে পারে না। ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি এ ঘটনা তদন্তে একটি কমিশন গঠনের দাবি জানিয়েছেন।

সৌদি কর্তৃপক্ষ সর্বশেষ দাবি ঘোষণা দিয়েছে মিনায় মৃতের সংখ্যা ৭৬৯ জন। তবে অধিকাংশ মুসলিম দেশ তাদের নিখোঁজ নাগরিকদের হিসাব করে জানিয়েছে নিহতের সংখ্যা এর চেয়ে অনেক বেশি। ২৪ দেশ তাদের নিখোঁজ নাগরিকদের পরিসংখ্যান থেকে জানিয়েছে, সেখানে মৃতের সংখ্যা এক হাজার ৩৬ জন। তবে ইরান বলেছে এ সংখ্যা দুই থেকে চার হাজারের মতো।

তথ্যসূত্র : আল জাজিরা অনলাইন।