মেইন ম্যেনু

মিরপুর থেকে গ্রেপ্তার জঙ্গিরা রিমান্ডে

প্রায় ১৪ ঘণ্টার অভিযান চালিয়ে গতকাল রাজধানীর মিরপুর থেকে গ্রেপ্তার তিন জঙ্গিকে ৬ দিনের রিমান্ডে পেয়েছে পুলিশ। আদালতে হাজির করে তাদের ১০ দিনের রিমান্ডে নেয়ার আবেদন করা হলে শুনানি শেষে বিচারক তাদের ছয় দিনের রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেন।

শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাজহারুল ইসলামের আদালতে এই রিমান্ড আবেদনের ওপর শুনানি হয়।

পুলিশ যাদের রিমান্ডে নেয়ার অনুমতি পেল তারা হলেন- আবু সাইয়িদ রাসেল (২২), ইলিয়াস ওমর ফারুক (২৩) ও মহসীন আলী (২০)। বিকেলের দিকে গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মমিন খান তাদের আদালতে হাজির করে রিমান্ড আবেদন করেছিলেন।

বুধবার রাত ২টা থেকে বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টা পর্যন্ত মিরপুর-১ নম্বর সেকশনের এ ব্লকের ৯ নম্বর রোডের ৩ নম্বর বাড়িতে অভিযান চালায় পুলিশ। ওই ভবনের ৬ষ্ঠ তলার দুটি কক্ষ থেকে ১৬টি হ্যান্ড গ্রেনেড, ১৬ রাউন্ড গুলি ও দুইটি পাইপ বোমা উদ্ধার করে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এছাড়া বেশকিছু সুইসাইড বেল্টও উদ্ধার করা হয়। অভিযানে জেএমবির তিন সদস্যসহ আটক করা হয় সাতজনকে। ওই ফ্ল্যাটের একটি কক্ষ থেকে তালাবদ্ধ ট্রাঙ্কও উদ্ধার করা হয়। ওই ট্রাঙ্কের তালা কেটে সেখান থেকে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়। একটি কক্ষ থেকে দেশীয় হ্যান্ড গ্রেনেড তৈরির জন্য একটি ছোট আকারের লেদ মেশিনও উদ্ধার করা হয়। ওই লেদ মেশিন দিয়ে হ্যান্ড গ্রেনেড তৈরির জন্য টিউবওয়েলের পাইপ কাটা হতো।

শাহ আলী থানার ওসি শাহীনুজ্জামান জানিয়েছিলেন, জেএমবি সদস্য আটক ও গ্রেনেড- বিস্ফোরক উদ্ধারের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে একটি মামলা করেছে। ওই মামলায় আটককৃত তিন জেএমবি সদস্যকে আসামি দেখানো হয়েছে।

মামলায় অজ্ঞাতনামা ছয়জনসহ মোট ১১ জনকে আসামি করা হয়। এরমধ্যে এজহারনামীয় তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এজহারনামীয় শাকিল ও ইমরানকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি।