মেইন ম্যেনু

মিলনের চরম মুহূর্তে ফেটে গেল কনডম! অতঃপর যা হল ভাবতেই পারবেন না

ঘনিষ্ঠ মুহূর্তে একটু বে-খেয়াল হলে আর রক্ষে নেই! তাই ঘনিষ্ঠ মুহূর্তে কন্ডোমের কোনও বিকল্প নেই। কিন্তু প্রেমিকার অজান্তে যদি কন্ডোম খুলে ঘনিষ্ঠ হন, এবং পরে সেটি যদি জানতে পারে আপনার প্রেমিকা তাহলে কি ঘটতে পারে জানেন! ভাবতেই পারেন যে কি আর বেশি ঘটবে! একটু রাগারাগি-ঝামেলা ব্যস। কিন্তু না, আপনার ধারনাটা ভুল। এমন কাজ করে সুইজারল্যান্ডে এক যুবকের ঠাই হয়েছে জেলে। শুধু তাই নয়, ওই যুবকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলাও দায়ের করা হয়েছে। ভাবছেন তো ঘটনা কি?

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে, একটি ড্ডেটিং অ্যাপের মাধ্যমে সুইস এক মহিলার সঙ্গে আলাপ হয় এক ব্যক্তির। প্রথমে ভাব… আর এরপরে দেখা। ঠান্ডার মরশুমে শুধু কি দেখা করলেই হবে! একটু মিলিত হলে ক্ষতি কি! আর তাই ঘনিষ্ঠ হওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় দুজনেই। তবে গার্লফ্রেন্ডের শর্ত ছিল, মিলনের সময় কন্ডোম ব্যবহার করতে হবে পার্টনারকে। সেই শর্ত মেনেও নেয় পার্টনার। তাঁরা মিলিত হন। কিন্তু ঘনিষ্ঠ মুহূর্তে যে এমন কাণ্ড ঘটে যাবে তা কল্পনাতেও ভাবতেও পারেনি। ঘনিষ্ঠ মুহূর্তে বাজেভাবে ছিঁড়ে যায় প্রেমিকের কন্ডোম। উত্তেজনার মুহূর্তে তা খেয়াল করেননি প্রেমিকও। কন্ডোম ছাড়াই মিলিত হন দু’জনে। প্রেমিকার অভিযোগ, শেষে তিনি বুঝতে পারেন ব্যাপারটি। এবং এতেই মেজাজ চরমে ওঠে।

আর এরপরেই প্রেমিকের বিরুদ্ধে শর্ত ভাঙার অভিযোগ তোলেন প্রেমিকা। শুধু অভিযোগ তোলাই নয়, পুলিশের কাছে সরাসরি নালিশ ঠুকে দেন। সেই মতো ওই যুবককে গ্রেফতার করে পুলিশ। এমনকি, আদালতে তোলা হলে তাঁকে দোষী সাব্যস্তও করা হয়। ইচ্ছার বিরুদ্ধে কন্ডোম ছাড়া সেক্স ধর্ষণের সমান, পর্যবেক্ষণে জানায় আদালত। শেষমেষ এক বছরের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেন।