মেইন ম্যেনু

মিশরের ফারাও তুতানখামুনের সমাধিতে গোপন কুঠুরি

মিশরের রাজাদেরকে বলা হত ফারাও। এই ফারাওদের সমাধিসম্ভ রাখা আছে মিশরের রাজাদের উপত্যাকায়। তুতানখামুন ছিলেন ১৮তম রাজবংশের ফারাও, তাকে সংক্ষেপে ডাকা হত তুত রাজা বলে। এই তুত রাজার সমাধি খুঁটিয়ে পরীক্ষা করে পাওয়া গেছে চমকপ্রদ এক তথ্য, তার সমাধির নিচে একটা গোপন কুঠুরির সন্ধান আবিস্কার করেছেন প্রত্নতাত্ত্বিক বিজ্ঞানীরা।

2015_11_28_18_51_05_tNlCMy4vMWbFrDiQuE0peJcJnTmiDi_original
তুতের সমাধিস্থল

তুতানখামুনের সমাধিস্তম্ভের উপর গভীর বিশ্লেষণ করে গবেষকরা একটি লুকানো কুঠুরির অস্তিত্বের শতকরা ৯০ ভাগ সম্ভবনা খুঁজে পেয়েছেন এবং ধারণা করা হচ্ছে সেখানে মিশরের রানী নেফ্রেতিতির কবর রয়েছে।

মিশরের পুরাতত্ত্ব মন্ত্রী মাহমুদ আল দামাতি আজ শনিবার সংবাদ মাধ্যমকে এই আবিষ্কারের ব্যাপারে অবহিত করেন এবং তিনি আশা প্রকাশ করেন যে এই লুকানো কুঠুরিতে রানী নেফ্রেতিতির অবশিষ্টাংশ পাওয়া যাবে।

তিনি বলেন, ‘আমরা তুত রাজার কবরের পিছনে আরেকটি কুঠুরি এবং কুঠুরিতে আরেকটি সমাধির অস্তিত্ব পেয়েছি। আমাদের বিশেষজ্ঞরা এ ব্যাপারে ৯০ ভাগ নিশ্চিত।’

প্রাচীন ফারাওদের রাজধানী লুক্সর এর পার্শ্ববর্তী উপত্যাকায় স্থাপিত এই তুত রাজার সমাধিতে অন্বেষণ শুরু হয় গত বৃহস্পতিবার। নিকোলাস রিভস নামের একজন ব্রিটিশ প্রত্নতাত্ত্বিকের গবেষণার উপর অনুপ্রাণিত হয়ে এই অনুসন্ধানের সূচনা হয়। নিকোলাস রিভস ধারণা করেছিলেন যে রানী নেফ্রেতিতির হারানো সমাধি হয়তোবা এখানে লুকিয়ে সংযুক্ত করা থাকতে পারে।

নিকোলাস রিভস গত সেপ্টেম্বর মাসে তুতের সমাধি পরিদর্শন করেন। তার ধারণা রাজা তুত যেহেতু ১৯ বছর বয়েসে মারা যান, কাজেই তার জন্য তাড়াহুড়ো করে নতুন সমাধি খনন না করে সম্ভবত রানী নেফ্রেতিতির সমাধিতেই তাকে সমাধিস্থ করা হয়েছিল। রাজা তুত সম্ভবত ছিলেন নেফ্রেতিতির ছেলে।

উল্লেখ্য রানী নেফ্রেতিতির ছিলেন মিশরের অনিন্দ্য সুন্দরী রানী যে কিনা মহান ফারাও আখেনাতেনের স্ত্রী ছিলেন।

2015_11_28_18_51_07_P4U4oWRL7DZCwj2dJ6ge5zLEoayMxT_original
মিশরের রানী নেফ্রেতিতি