মেইন ম্যেনু

মিশরে পার্লামেন্ট নির্বাচনে ভোট চলছে

মিশরে পার্লামেন্ট নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। প্রথম দফায় রোববার ও সোমবার দুদিন ধরে ভোট চলবে। আগামী মাসের শেষ নাগাদ দ্বিতীয় দফা ভোট হওয়ার কথা রয়েছে।

২০১২ সালে পার্লামেন্ট ভেঙে দেয়ার পর দেশটিতে এটিই প্রথম সাধারণ নির্বাচন। এই ভোটকে দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে উল্লেখ করেছেন কর্তৃপক্ষ। যদিও দেশের প্রধান রাজনৈতিক দল এ নির্বাচন বর্জন করেছে।

রোববার স্থানীয় সময় সকাল আটটায় ভোট শুরু হয়েছে। স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত ভোট চলবে বলে জানিয়েছে বিবিসি। সোমবার একই সময়ে ফের ভোট শুরু হবে। প্রথম দফার এই নির্বাচনে দেশের ২৭টি প্রদেশের অর্ধেক স্থানেই ভোট হওয়ার কথা রয়েছে।আগামী ২১ ও ২২ নভেম্বর দ্বিতীয় দফার ভোট অনুষ্ঠিত হবে। ডিসেম্বরের গোড়ার দিকে এই নির্বাচনের ফলাফল জানা যাবে বলে নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে।

এ নির্বাচনের মোট বৈধ ভোটারের সংখ্যা হচ্ছে ৫ কোটি ৫০ লাখ। এই ভোটের মাধ্যমে ভোটাররা পার্লামেন্টর নিম্ন কক্ষের ৫৯৬ জন প্রতিনিধি নির্বাচিত করবেন। তবে এ নির্বাচনে কতটা নিরপেক্ষ হবে তা নিয়ে সংশয় রয়েই যাচ্ছে। কেননা পার্লামেন্ট নির্বাচনে অধিকাংশ প্রার্থীই প্রেসিডেন্ট সিসির সমর্থক বলে জানা গেছে। এছাড়া স্বৈরশাসক হোসনি মোবারকের বেশ কিছু সাবেক কর্মকর্তারাও এতে অংশ নিচ্ছেন। দেশের প্রধান বিরোধী দল মুসলিম ব্রাদারহুডসহ দেশের ইসলামিক দলগুলো এ নির্বাচন বর্জন করেছে। এছাড়া মধ্যপন্থি হিসেবে পরিচিত ওয়াসাত পার্টি এবং স্ট্রং ইজিপ্ট পার্টি এ নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে না।

নির্বাচন উপলক্ষে গোটা দেশে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। মিশরের সরকারি বার্তা সংস্থা মিনা জানিয়েছে, এ উপলক্ষে বিভিন্ন ভোটকেন্দ্রগুলোতে ১ লাখ ৮৫ হাজার সেনা ও পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

নির্বাচনের একদিন মিশরের প্রেসিডেন্ট আবুল আগে শনিবার রাতে জাতির উদ্দেশে দেয়া এক টেলিভিশন ভাষণে ভোটারদের লাইন ধরে শৃঙ্খলার সঙ্গে ভোট দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল সিসি। সাবেক সেনাপ্রধান সিসি ২০১৩ সালে এক গণ অভ্যূত্থানের মাধ্যমে মিশরের গণতান্ত্রিক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসিকে সরিয়ে দিয়ে ক্ষমতা দখল করেছেন।