মেইন ম্যেনু

মিয়ানমারে ইসলাম বিরোধী মন্তব্য করে নোবেল হারাচ্ছেন অং সান সুচি?

মিয়ানমারের গণতন্ত্রের নেত্রী অং সান সুচির নোবেল ফেরত নেয়ার দাবি জানিয়েছে ইন্দোনেশিয়া। ইসলাম বিরোধী মন্তব্য করায় দেশটির দেড় শতাধিক দুর্নীতি বিরোধী কর্মী এ দাবীতে একটি পিটিশন দাখিল করেছে।

নরওয়ের নোবেল কমিটির কাছে ওই পিটিশন হস্তান্তরের আগে জনমত গঠন করতে ই-পিটিশন তৈরি করেন ইন্দোনেশিয়ার কর্মীরা। খবর গ্লোবাল ইন্দোনেশিয়ান ভয়েস ও জাকার্তা টাইমসের।

ইতিমধ্যে ওই পিটিশনের সমর্থনে বিশ্বব্যাপী প্রায় ২৬ হাজার কর্মী স্বাক্ষর করেছেন। প্রাথমিকভাবে বিশ্বের বৃহত্তম পিটিশন প্লাটফর্ম ‘চেঞ্জ ডট কমে’ এ আরজি করা হয়েছে। এটি ২০১৬ সালের নরওয়ে নোবেল কমিটির চেয়ারম্যান কাচি কুলমান ফাইভ ও ডেপুটি চেয়ারম্যান বেরিট রেইস এন্ডারসিনের কাছে পেশ করা হবে।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারের রোহিঙ্গা প্রসঙ্গে মিশাল হুসেনের জোরালো প্রশ্নে সুচি মেজাজ হারান এবং তাকে বিড়বিড় করে ক্রোধের সঙ্গে বলতে শোনা যায়, ‘একজন মুসলিম যে আমার সাক্ষাৎকার নেবে এটা আমাকে কেউ বলেনি।’ ‘দ্য লেডি অ্যান্ড দা জেনারেলস : অং সান সুচি অ্যান্ড বার্মার স্ট্রাগল ফর ডেমোক্রেসি’ বইতে এ তথ্য ফাঁস করেন সাংবাদিক পিটার পপহ্যাম।

এদিকে সুচির নোবেল ছিনিয়ে নেয়ার ওই আবেদনটির প্রধান সমন্বয়ক করা হয়েছে ইন্দোনেশিয়ান করাপশান ওয়াচের (আইসিডব্লিউ) কর্মী ইমরসন উনথোকে। উনথোর সুরে সুর মিলিয়েছেন ইন্দোনেশিয়ার প্রখ্যাত লেখক গোয়েনাওয়ান মোহাম্মদ এবং অর্থনীতিবিদ দিদিক জে রাচবিনি। পিটিশন পেপারে দাবি করা হয়েছে, শান্তির প্রতীক হিসেবে দেয়া সুচির নোবেল ছিনিয়ে নেয়া হোক। কারণ, তিনি শান্তির নামে অশান্তি ছড়াচ্ছেন