মেইন ম্যেনু

মুক্তি পাচ্ছেন না কোহলির সেই ভক্ত!

ভারতের পতাকা উড়ানোর দায়ে গ্রেফতার হওয়া ভারতীয় তারকা ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলির পাকিস্তানি সমর্থক উমর দারাজকে মুক্তি দেওয়া হয়নি। পাকিস্তানের আদালত দারাজের পক্ষে করা জামিন আবেদন নাকচ করে দিয়েছেন।

দারাজের করা জামিন আবেদন নাকচ করেন জেলা আদালতের বিচারক অনিক আনোয়ার। ফলে, মঙ্গলবার (২৬ জানুয়ারি) গ্রেফতার হওয়া পাকিস্তানি সমর্থক উমর দারাজের এ ঘটনায় ১০ বছরের জেল হতে পারে।

এ প্রসঙ্গে দারাজের কৌঁসুলি আমির ভাট্টি জানান, ‘আমরা বিষয়টি নিয়ে বেশ চিন্তিত। আদালতের এমন রায়ে আমরা হতাশ। তবে, আদালতের এ রায়ের বিপক্ষে লড়াই চালিয়ে যাব।’

এদিকে, তোলপাড় হওয়া সেই ঘটনার পর সেই সমর্থককে জেল থেকে মুক্ত করতে এগিয়ে আসার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল কোহলির পরিবার। উমর দারাজকে মুক্ত করার প্রসঙ্গে কোহলির ভাই বিকাশ কোহলি জানিয়েছিলেন, ‘ঘটনাটি আমরা শুনেছি। কোহলির সেই ভক্তের জন্য দুঃখ প্রকাশ করছি। আমরা তাকে মুক্ত করার ব্যাপারে পাকিস্তান সরকারের বরাবর আবেদন করবো। তবে তার আগে অবশ্যই এ ব্যাপারে আমরা কোহলির সঙ্গে আলোচনা করবো।’

কিন্তু, কোহলির পরিবারের পক্ষ থেকে আর কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি বলে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম গুলো প্রকাশ করে।

এর আগে পাঞ্জাব প্রদেশে থাকা ২২ বছর বয়সী উমর দারাজ নামের সেই সমর্থকের বড় অপরাধ ছিল ভারতীয় পতাকা উত্তোলন করে কোহলির সমর্থন জানানো। পেশায় দর্জি এই তরুণের বিপক্ষে দেশটির দণ্ডবিধির ১২৩-ক ধারায় মামলা করা হয়। দেশের সার্বভৌমত্বের ক্ষতি করে এমন অপরাধে তাকে ১০ বছরের জেল দেওয়া হতে পারে।

লাহোর থেকে ২০০ কিলোমিটার দূরে পাঞ্জাবের ওকারা জেলায় বাস করেন দারাজ। মঙ্গলবার (২৬ জানুয়ারি) ভারতের প্রজাতান্ত্রিক দিবসে এমন অপরাধ করায় দারাজকে গ্রেফতার করে পাকিস্তানি পুলিশ।

এদিকে কোহলির সমর্থক দারাজ জানান, ‘আমি কোহলির ভক্ত। আমি ভারতীয় দলকে সমর্থন করি শুধুমাত্র কোহলির জন্য। আর আমার ছাদের ওপর ভারতীয় পতাকা উড়িয়েছি শুধুমাত্র সেখানের ক্রিকেটারদের প্রতি ভালোবাসা থেকে। ভারতীয় পতাকা উড়ালে যে অপরাধ হবে এটি জানতাম না। আমি শুধুই একজন ভারতীয় সমর্থক, কোনো গোয়েন্দা নই।

পাকিস্তানি পুলিশ দারাজের ঘর থেকে ভারতীয় পতাকা ছাড়াও তার দেওয়ালে বেশ কয়েকটি কোহলির পোস্টার জব্দ করে। ভারতীয় প্রজাতান্ত্রিক দিবসে অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের টি-টোয়েন্টি ম্যাচ চলাকালীন এমন ঘটনা ঘটে।



« (পূর্বের সংবাদ)