মেইন ম্যেনু

মুখের ঘা প্রতিরোধ করুন ঘরোয়া ৫ উপায়ে

মুখে ঘা খুব সাধারণ এবং বিরক্তিকর সমস্যা। সাদাটে এই ঘা খুবই কষ্টদায়ক হয়ে থাকে। ছোট, বড় সবাই মুখে ঘায়ের সমস্যা ভুগে থাকেন। এটি সাধারণত মুখের ভিতর, জিহবা, ঠোঁট, দাঁতের মাড়িতে হয়ে থাকে। বিভিন্ন কারণে মুখে ঘা হতে পারে। এর প্রধাণ কারণগুলো হল জ্বর, রক্ত স্বল্পতা, ফুড অ্যালার্জি, পুড়ে যাওয়া,স্ট্রেস, অতিরিক্ত অ্যাসিডিটি, ভিটামিনের অভাব ইত্যাদি। মুখে ঘা ৭ থেকে ১০ দিন পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে। মুখে ঘায়ের ব্যথা অনেক তীব্র হয়ে থাকে, তখন অনেকই ঠিকমত খেতে পারেন না। ঘরোয়া কিছু উপায়ে মুখের ঘা থেকে পরিত্রাণ পাওয়া সম্ভব।

১। যষ্টিমধু

যষ্টিমধু মুখের ঘা দূর করতে বেশ কার্যকরী। এক টেবিল চামচ যষ্টিমধু দুই কাপ পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। তারপর এটি দিয়ে কয়েকবার কুলি করুন। এর অ্যান্টি-ইনফ্লামেটরী এবং অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল উপাদান মুখের ঘা প্রতিরোধ করে থাকে।

২। টি ব্যাগ

খুব সহজ ঘরোয়া উপায়ে মুখের ঘা দূর করার আরেকটি উপায় হল টি ব্যাগ। এটি দ্রুত ব্যথা এবং ইনফ্লামেশন দূর করে দিয়ে থাকে। একটি টি ব্যাগ ঠান্ডা পানিতে ভিজিয়ে সেটি ঘায়ের স্থানে লাগান। এটি সাথে সাথে আপনার ব্যথা কমিয়ে দিয়ে দিবে।

৩। নারকেল দুধ

এক টেবিল চামচ নারকেল দুধের সাথে মধু মিশিয়ে নিন। এবার এটি ঘায়ের স্থানে ম্যাসাজ করুন। দিনে তিন থেকে চারবার করুন। মধু ছাড়া শুধু নারকেলের দুধ দিয়ে ম্যাসাজ করতে পারেন।

৪। তুলসি

কয়েকটি তুলসি পাতাসহ পানি দিনে তিন থেকে চারবার পান করুন। এটি দ্রুত মুখের ঘা প্রতিরোধ করে দিবে এবং মুখের ঘা হওয়ার প্রবণতা কমিয়ে দিবে। তুলসি পাতার ঔষধি উপাদান মুখের ঘা উপশম করে থাকে।

৫। অ্যালোভেরা জেল

অ্যালোভেরা জেল বা জুস মুখের ঘা প্রশমিত করে ব্যথা কমিয়ে দিয়ে থাকে। অ্যালোভেরা জেল প্রাকৃতিক অ্যান্টিসেপ্টিক যার অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টিফিংগাল, অ্যান্টিভাইরাল উপাদান আছে। গবেষণায় দেখা গেছে মুখের সমস্যা যেমন ঘায়ের ভাল প্রতিষোধক হল অ্যালোভেরা জেল।

টিপস:

১। মুখের ঘায়ের ব্যথা বেড়ে গেলে এক টুকরা বরফ নিয়ে ঘায়ের স্থানে রাখুন। অথবা ঠান্ডা পানি দিয়ে কুলিকুচি করুন। এটি সাময়িকভাবে ব্যথা থেকে উপশম দিবে।

২। এক টুকরো লবঙ্গ মুখে দিয়ে রাখুন। অথবা লবঙ্গের রস দিয়ে ঘায়ের স্থানটি লাগাতে পারেন।

৩। লবণ পানি কুলকুচি করে নিতে পারেন, এটি মুখের ইনফেকশন প্রতিরোধ করে থাকবে।



« (পূর্বের সংবাদ)