মেইন ম্যেনু

মুখে হাসি নিয়ে পাকিস্তানে গেল নারী ক্রিকেটাররা

মুখে হাসি থাকার কথা না। কিন্তু পরিচিতমুখগুলোর মুখে হাসি! পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে বলে বাড়তি চিন্তা ও চাপ থাকার কথা নারী ক্রিকেটারদের। তাদের দেখে মনে হল বেশ আনন্দেই আছেন তারা! পরিবার নিয়ে বিমানবন্দরে আসা, সেলফি উৎসবে মেতে ওঠা সহ হাসি-ঠাট্টায় মগ্ন ছিলেন সামলা, সুপ্তা ও জাহানারা।

নিরাপত্তা ইস্যুতে যখন ক্রিকেট বিশ্বের দেশগুলো পাকিস্তানের থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে সেখানে বাংলাদেশ ব্যতিক্রম! হাত বাড়িয়ে পাকিস্তান সফরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ক্রিকেট বোর্ড নারী ক্রিকেটারদের চাপিয়ে দিয়েছে এমনটি নয়। নারী ক্রিকেটাররাও নিরাপত্তা ইস্যুতে আশ্বস্ত হওয়ার পর পাকিস্তানে যেতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

সোমবার দুপুর ১.৩৫ মিনিটে পাকিস্তানের পিকে-২৬৭ ফ্লাইটে পাকিস্তান গেছে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। বিকেল চারটার মধ্যেই করাচিতে পৌঁছার কথা রয়েছে সফরকারী দলের।

স্বাগতিকদের বিপক্ষে দুটি টি-টোয়েন্টি ও দুটি ওয়ানডে খেলবে বাংলাদেশ নারী দল। ৩০ সেপ্টেম্বর ও ২ অক্টোবর হবে টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। ৪ ও ৬ অক্টোবর ওয়ানডে ম্যাচ খেলবে দুই দল। প্রতিটি ম্যাচ হবে করাচি সাউথ অ্যান্ড ক্লাব গ্রাউন্ডে।

পাকিস্তানে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলকে ভিভিআইপি নিরাপত্তা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ম্যানেজার শফিকুল হক হীরা। রোববার মিরপুরে তিনি বলেন, ‘আমাদের ভিভিআইপি নিরাপত্তা দেওয়া হবে। আমরাও সেটাই আশা করছি। রাষ্ট্রপতি বা প্রধানমন্ত্রী যে ধরনের নিরাপত্তা পান, আমরা সে ধরনের নিরাপত্তাই পাবো। এ জন্য আমরা আশ্বস্ত। আশা করছি কোনো ধরনের অসুবিধা হবে না। আমরা পাকিস্তানের কাছে সর্বাত্মক সহযোগিতা আশা করছি।’

index

বিমানবন্দরে জাহানারা আলম বলেন, ‘আমরা সেখানে খেলতে যাচ্ছি। বাড়তি কোনো বিষয় নিয়ে চিন্তা করছি না। বোর্ড নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পরই সফর ঠিক করেছেন। আশা করছি বেশ ভালোমতই সফর শেষে ভালোভাবেই দেশে ফিরে আসতে পারব।’

৭ অক্টোবর দেশে ফেরার কথা রয়েছে সালমাবাহিনীর।

বাংলাদেশ স্কোয়াড : সালমা খাতুন, জাহানারা আলম, ফারজানা হক পিংকি, রুমানা আহমেদ, লতা মন্ডল, আয়েশা রহমান শুকতারা, পান্না ঘোষ, শারমীন আক্তার সুপ্তা, ফাহিমা খাতুন, শামীমা সুলতানা, রিতু মনি, নিগার সুলতানা, খাদিজাতুল কুবরা, শারমীন সুলতানা, নাহিদা আক্তার।

স্ট্যান্ডবাই : সানজিদা ইসলাম, সুমনা আক্তার।