মেইন ম্যেনু

মুখোমুখি রোনালদো-বেনজেমা

ক্লাবের হয়ে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে খেলেন তারা। লক্ষ্য থাকে একটাই, প্রতিপক্ষকে হারানো। তবে এবার একে অন্যকে হারাতে মাঠে নামছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ও করিম বেনজেমা। কারণ এবার যে আর রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে নয়, দুজন মাঠে নামছেন জাতীয় দলের জার্সিতে। আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে পর্তুগাল ও ফ্রান্স।

পর্তুগালের রাজধানী লিসবনের স্ট্যাডিও হোসে আলভালাদেতে বাংলাদেশ সময় শুক্রবার রাত পৌনে একটায় শুরু হবে ম্যাচটি।

১৯৯৮ বিশ্বকাপজয়ী ফ্রান্সের সাম্প্রতিক সময়টা মোটেই ভালো যাচ্ছে না। নিজেদের শেষ চার ম্যাচের তিনটিতেই হেরেছে দিদিয়ের দেশমের দল। তার মধ্যে আগামী বছর ফ্রান্সেই বসছে ইউরোপের সবচেয়ে বড় ফুটবল আসর ইউরো চ্যাম্পিয়নশীপ।

স্বাগতিক হওয়ার সুবাদে ফ্রান্সকে ইউরোর বাছাইপর্ব খেলা লাগছে না। তবে সম্প্রতি তাদের যা অবস্থা তাতে ঘরের মাঠে অনুষ্ঠেয় টুর্নামেন্টের আগে তো ফর্মে ফেরা দরকার। কোচ দেশমের কণ্ঠেও একই সুর, ‘আমরা নতুন উদ্যম নিয়ে ইউরোর মিশন শুরু করতে চাই। তবে এর জন্য আগে আমাদের ফর্মে ফেরা দরকার।’

অন্যদিকে পর্তুগাল সম্প্রতি বেশ ভালো ফর্মে রয়েছে। এ বছর চার ম্যাচ খেলে তিনটিতেই জয় পেয়েছে রোনালদো-পেপেদের দল। নিজেদের শেষ প্রীতি ম্যাচে চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইতালিকে হারিয়ে দিয়েছে পর্তুগিজরা। এই মুহূর্তে ২০১৬-ইউরো বাছাইপর্বে ‘আই’ গ্রুপের শীর্ষে আছে পর্তুগাল, ৫ ম্যাচ থেকে তাদের সংগ্রহ ১২ পয়েন্ট।

আগামী ৭ সেপ্টেম্বর ইউরো বাছাইয়ে আলবেনিয়ার বিপক্ষে খেলবে পর্তুগাল। ফলে ফ্রান্সের বিপক্ষে ম্যাচটি তাদের জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ণই। তবে ফ্রান্সের বিপক্ষে পর্তুগিজদের অতীত ইতিহাস মোটেই সুখকর নয়। এ পর্যন্ত দুই দলের ২৩ বারের দেখায় ১৭টিতেই জিতেছে ফ্রান্স, পর্তুগালের জয় ৫টিতে। অপর ম্যাচটি হয়েছে ড্র। ফ্রান্সের বিপক্ষে শেষ নয় ম্যাচেই হেরেছে পর্তুগিজরা। ফ্রান্সকে শেষবার তারা হারিয়েছিল সেই ১৯৭৫ সালে। আজ রাতে ফ্রান্সের বিপক্ষে দীর্ঘদিনের জয়খরা কাটাতে পারবে পর্তুগাল?