মেইন ম্যেনু

মুজাহিদের মৃত্যুদন্ড বহাল প্রজন্মের প্রত্যাশার প্রতিফলন

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন পরবর্তী স্বাধীন বাংলাদেশকে মেধাশূন্যের নীলনকশা বাস্তবায়ণ করার চেষ্টায় বাংলার মেধাবী সূর্য্য সন্তানদের হত্যার অন্যতম বর্বর ব্যক্তি ইসলামী ছাত্র সংঘ ও আল বদর বাহিনীর অন্যতম শীর্ষ নেতা এবং জামায়াত ইসলামের সেক্রেটারি জেনারেল ও বিএনপি-জামায়াত জোটের সমাজকল্যাণ মন্ত্রী মুজাহিদের মৃত্যুদন্ড রায় বহাল থাকায় এ প্রজন্মের আশা-প্রত্যাশার প্রতিফলন হয়েছে বলে মনে করছে বাংলাদেশ অনলাইন অ্যাক্টিভিষ্ট ফোরাম (বোয়াফ)।

বোয়াফ সভাপতি কবীর চৌধুরী তন্ময় বলেন, কুখ্যাত রাজাকার, মানবতাবিরোধী অপরাধী বর্বর মুজাহিদের বিচার ও রায়ের মাধ্যমে আবারও প্রমাণীত হল, আজ হোক আর কাল হোক কিংবা স্বাধীনতার ৪৩ বছর পরে হলেও সত্য, স্বাধীন বাংলায় স্বাধীনতাবিরোধীদের কোনো ঠায় নেই এবং বিচারের মাধ্যমে সাজা ভোগ করতেই হবে।

তিনি আরও বলেন, ‘বাংলার মাটিতে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হবেই’ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সেই সংকল্প তাঁর সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনার শাসনামলে বাস্তবায়ন দেখতে পেয়ে মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার স্বপ্নের মানুষগুলো যেমন কৃতজ্ঞ তেমনি ভাবে এ প্রজন্মের উপর লেপন করা কলঙ্ক মুচনের মহানায়ক শেখ হাসিনাকে শ্রদ্ধা, সম্মান আর ভালোবাসার সহিত যুগ যুগ ধরে পরবর্তী প্রজন্মের কাছে উপস্থাপন করবে।

অনতিবিলম্বে বর্বর মুজাহিদের মৃত্যুদন্ডের রায় বাস্তবায়ন করার পাশাপাশি মুজাহিদের সকল সম্পদ রাষ্ট্রয়াত্ব করণ এবং হত্যাযজ্ঞ সংঘঠিত সংগঠন জামায়াত-শিবিরকে নিষিদ্ধের দাবী জানান সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কবীর চৌধুরী তন্ময়।

মানবতাবিরোধী অপরাধী মুজাহিদের মৃত্যুদন্ডের রায় বহালের সংবাদে তোপখানা রোড বোয়াফ কার্যালয় উপস্থিত নেতৃবৃন্দের মিষ্টি মুখ ও আশেপাশের সবার মাঝে মিষ্টি বিতরণ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সহ-সভাপতি রাশিদা হক কনিকা, এড. ইয়াছিন করিম, মিজানুর রহমান মিজান, সাধারণ সম্পাদক মো. আজম আজীম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইফুল্লাহ আল মামুন, শামীম এইচ চৌধুরী, ইমরান খান শ্রাবন, সাংগঠনিক সম্পাদক হাবিবুল্লাহ মিছবাহ, মোস্তাফিজুর রহমান রাজীব, নাজমা আক্তার রোজী, শাহরিয়া রায়হান, প্রচার সম্পাদক ব্লগার রফিকুল ইসলাম রাকিব সহ আরও অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।