মেইন ম্যেনু

মুশফিকের সেঞ্চুরিতে বড় সংগ্রহের দিকে বাংলাদেশ

দলীয় ২৪৩ রানে রান আউটের শিকার হলেন শতক হাকানো মুশফিকুর রহিম।

মুশফিকুর রহিমের সেঞ্চুরির পরই রান আউটের কবলে পড়ে আউট হন সাব্বির রহমান। দলীয় ২৪২ রানের মাথায় সাব্বির যখন আউট হন তখন তার রান ৫৭ (৫৮)। সাব্বির স্থান পূরণ করতে মাঠে নেমে শূণ্য রানে আউট হন নাসির হোসেন। নাসিরের পথ অনুসরণ করেন মুশফিকও।

অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার সঙ্গি হয়েছেন আরাফাত সানি।

দলের টপ ৪ ব্যাটসম্যানের দ্রুত সাজ ঘরে ফেরার পর বাংলাদেশ টিমের হাল ধরলেন মুশফিকুর রহিম ও সাব্বির রহমান রুম্মন। মুশফিক তাঁর স্বভাব সুলভ ক্রিকেট খেলে সেঞ্চুরি হাখিয়েছেন। দলীয় ২৩২ রানে মুশফিক যখন নিজের শতরান পূর্ণ করেন তখন প্রতিপক্ষের বল মোকাবেলা করেছেন ১০৪টি। ১টি ছয় ও ৮টি ৪রানের মাধ্যমে তিনি এ রান করেন। ওয়ানডেতে এটি তার ৪র্থ শতক।

এর আগে ৪ উইকেট হারিয়ে ৩০ ওভার শেষে দলীয় ১৩১ রানে মুশফিকুর রহিমের (৫৬) সঙ্গি হয়েছেন সাব্বির (২)।

৩০ রানের মধ্যে লিটন দাস ও মাহমুদউল্লাহর উইকেট হারিয়ে বিপদেই পড়েছিল বাংলাদেশ। তবে তৃতীয় উইকেটে তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহিমের ব্যাটে ১০০ রান পার করে টাইগাররা। কিন্তু দলের শতরানের পরই ফিরে গেছেন তামিম ইকবাল (৪০)। আর ব্যর্থ হলেন সাকিবও। ব্যক্তিগত ১৬ রানে স্টাম্পিং এর ফাঁদে পড়ে আউট হন সাকিব আল হাসান।

৮.২ ওভারে লিটনের পথ ধরলেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। দলীয় ৩০ রানে রিয়াদ বোল্ড আউট হয়ে যখন সাজ ঘরে ফেরেন তখন তার ব্যক্তিগত রান ৯।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শুরু থেকেই বড় ইনিংস খেলতে ব্যর্থ হচ্ছিলেন লিটন দাস। ব্যর্থ হয়েছেন আজও। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই ‘ডাক’ মেরে বিদায় নিয়েছেন ওপেনিংয়ে সুযোগ পাওয়া লিটন।

বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়েঘরের মাঠে চারটি সিরিজ জয়ের রেকর্ড নিয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ প্রথম ম্যাচে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ। আত্মবিশ্বাসের চূড়ায় থেকে অতিথীদের বিপক্ষে মাঠে থাকছে বাংলাদেশ। অন্যদিকে জিম্বাবুয়ে শিবিরে ভিন্নচিত্র। ঘরের মাঠে আইসিসির সহযোগী দেশ আফগানিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ হারের স্বাদ নিয়ে বাংলাদেশে এসেছে দলটি। স্বাভাবিকভাবেই নিজেদের ফিরে পাওয়ার লড়াইয়ে নামবে অতিথীরা।

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দুই দলের লড়াইটি শুরু হয়েছে দুপুর ১টায়। টসে জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক এল্টন চিগুম্বুরা।

বাংলাদেশ সাত ব্যাটসম্যান নিয়ে খেলছে। সৌম্য সরকারের ইনজুরিতে স্কোয়াডে আসা ইমরুল কায়েসের একাদশে জায়গা হয়নি। অভিষেক হচ্ছে না কামরুল ইসলাম রাব্বির। নেই স্পিনার জুবায়ের হোসেন লিখনও। একাদশে আছেন পেসার আল-আমিন হোসেন।

বাংলাদেশ একাদশ : মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, লিটন দাস, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, সাব্বির রহমান, নাসির হোসেন, আরাফাত সানী, আল-আমিন হোসেন ও মুস্তাফিজুর রহমান।

জিম্বাবুয়ে একাদশ : এল্টন চিগুম্বুরা (অধিনায়ক), চামু চিবাবা, রিচমন্ড মুতুমবামি, ক্রেইগ আরভিন, শন উইলিয়ামস, সিকান্দার রাজা, লুক জংউই, গ্রায়েম ক্রেমার, তিনাশে পানিয়াঙ্গারা, তাউরাই মুজারাবানি ও মেলকম ওয়ালার।



« (পূর্বের সংবাদ)