মেইন ম্যেনু

‘মুসলমানরা যুদ্ধে ভয় পায় না’

উরিতে ১৮ সৈন্য নিহতের পর ভারত-পাকিস্তানের উষ্ণ সম্পর্ক বিদ্যমান। দু’দেশে ইতিমধ্যে যুদ্ধ প্রস্তুতি চলছে। একে অপরের মুখোমুখি।

এমন সময় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে যুদ্ধ নয়, প্রীতি ম্যাচ খেলার আহ্বান জানিয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার জাভেদ মিয়াঁদাদ।

আনন্দবাজার পত্রিকাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এ আহ্বান জানিয়েছেন।

মিয়াঁদাদ বলেন, আমার মতে দু’দেশের মধ্যে দুটো প্রতীকী ম্যাচ হোক। সেটা ওয়ানডে হতে পারে কি টি ২০। একটা ম্যাচ হবে পাকিস্তানে, একটা ভারতে।

মুসলমানরা যুদ্ধে ভয় পায় না জানিয়ে তিনি বলেন, দু’দেশের দূরত্ব ক্রিকেট দিয়েই কমাতে হবে। যুদ্ধ করে কোনো লাভ নেই। যুদ্ধের পরিণতি ভয়ংকর। আবার বলি, মুসলমানরা যুদ্ধে ভয় পায় না। প্রশ্ন হল, আমার মতো- আমার বয়সীরা তো জীবন কাটিয়ে ফেলেছে। আমার পরের প্রজন্ম, যারা জীবন দেখেনি, তারা যুদ্ধে প্রাণ দেবে কেন?

জাভেদ মিয়াঁদাদ বলেন, এই ম্যাচ ফ্রেন্ডলিও করা যেতে পারে। কিন্তু দু’দেশেই হতে হবে। নইলে জনগণের বিশ্বাস ফিরবে না। ভারতীয় বোর্ডের চিরাচরিত ব্যবহার চলবে না। একবার আমরা যাব, একবার তোমরা আসবে। আমার স্লোগান- যুদ্ধে যেও না, ক্রিকেটে ফেরো।

ভারতে রব উঠেছে উরির ঘটনার পর পাকিস্তানের সঙ্গে এখন আর ক্রিকেট না খেলার। এ বিষয়ে মিয়াঁদাদ বলেন, খেলবে না খেলবে না। ভারত কি মাথা কিনে নিয়েছে নাকি? উই আর নট বদার্ড। বহু বছর ধরেই তো ভারত আমাদের সঙ্গে খেলছে না। আমরা বিশ্বের এখন এক নম্বর টিম। ভারত র‌্যাংকিংয়ে দুই। এবার সত্যিকারের এক কে, সেটা নিষ্পত্তির জন্য ভারত যদি খেলতে না চায়, ভাল কথা। কেউ ওদের সাধতে যাবে না।

তিনি প্রস্তাব করেন, একটা গণভোট করা হোক ভারতে। দেখা হোক পাকিস্তান সম্পর্কে কী মনোভাব।

তিনি আরও বলেন, শতকরা ৯০ শতাংশ বলবে পাকিস্তান নিয়ে তাদের কোনো অসূয়া নেই। বলবে না ১০ শতাংশ। ঠিক সেই পার্সেন্টেজ যারা ঘোঁটটা পাকাচ্ছে।

মিয়াঁদাদ বলেন, আমি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে বলতে চাই, দুবাইয়ে যখন প্রবাসী ভারতীয়রা বসে পাকিস্তানের ম্যাচ দেখেন, কই তাদের চোখে তো আমি কোনো বিদ্বেষ দেখি না। কানাডায়, আমেরিকায়, ইংল্যান্ডে, দুবাইয়ে, যখন পাকিস্তানি আর ভারতীয়রা পাশাপাশি শান্তিপূর্ণ বসবাস করেন, তখন তাদের মধ্যে তো কোনো ক্ষোভ দেখি না। তাহলে এই দুটো দেশের মধ্যে এই ক্ষোভ তৈরি হয় কেন?