মেইন ম্যেনু

মূত্র থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন!

সম্প্রতি এক গবেষণায় দাবি করা হয়েছে বিশ্বের উন্নয়নশীল রাষ্ট্রগুলির জন্যে পরবর্তী বিকল্প শক্তির উত্স হতে চলেছে প্রস্রাব বা মূত্র।

বাথ বিশ্ববিদ্যালয়, লন্ডনের কুইন মেরি বিশ্ববিদ্যালয় এবং ব্রিস্টলের রোবোটিকস পরীক্ষাগারের তরফে মাইক্রোবায়েল ফুয়েল সেল-এর এক নতুন ডিজাইন বাজারে আনা হয়েছে, যা পুরনো মডেলের চেয়ে আয়তনে ছোট, অনেক কম খরচ সাপেক্ষ ও উত্পাদনের ক্ষেত্রে অনেক বেশি শক্তিশালী।

মাইক্রোবায়েল ফুয়েল সেল-এর মাধ্যমে বর্জ্য পদার্থ থেকে নয়া শক্তি তৈরি করা সম্ভব। যেহেতু বিশ্বে জীবাশ্ম জ্বালানির উত্পাদন আগের চেয়ে অনেক কমে গিয়েছে, তাই বর্জ্য পদার্থ থেকে শক্তি তৈরি করা বর্তমানে প্রয়োজনীয় হয়ে উঠছে।

বায়োএনার্জি থেকে এইধরনের শক্তি তৈরি করা যায়, এবং মাইক্রোবায়েল জ্বালানি সেই শক্তি তৈরি করতে সক্ষম। এই গবেষণার সঙ্গে যুক্ত আর এক গবেষকের দাবি, প্রস্রাব বা মূত্রকে মাইক্রোবায়েল ফুয়েল সেল-এর মাধ্যমে শক্তিতে পরিণত করা হবে।

প্রসঙ্গত বিদ্যুত্ উত্পাদনে বিপ্লব আনবে শক্তির এই নয়া উত্স। মূলত মাইক্রোবায়েল ফুয়েল সেল-এর মাধ্যমে প্রস্রাব, তার সঙ্গে গ্লুকোজ ও ডিমের সাদা অংশের প্রোটিন মিশে এই শক্তি তৈরি করবে।

গবেষকদের দাবি এই বর্জ্য পদার্থ দিয়ে শক্তি তৈরি হয়ে বিশ্বের উন্নয়নশীল দেশগুলিতে বিদ্যুৎ সরবরাহ সম্ভব হবে।